বিজ্ঞাপন

২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ৯৩৩ জন নিয়ে বিভাগে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৬ হাজার ২১ জনে। শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ২৪ ঘণ্টায় বগুড়ায় সর্বোচ্চ ২৪৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ ছাড়া রাজশাহীতে ২২২, পাবনায় ১৮৬, সিরাজগঞ্জে ১২২, নাটোরে ১২১, নওগাঁয় ২৩, জয়পুরহাটে ১০ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর মধ্যে জুলাই মাসের ২০ দিনে ২০ হাজার ২৬৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, রাজশাহী বিভাগে করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিভাগে আগের দিন ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছিলেন ১২ জন। নতুন ৯ মৃত্যু নিয়ে বিভাগে মৃত্যের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১৮৩ জনে। ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে সিরাজগঞ্জে ৩ জন। এ ছাড়া বগুড়া ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২ জন করে এবং রাজশাহী ও নাটোরে ১ জন করে করোনায় মারা গেছেন। বিভাগের আট জেলায় এ পর্যন্ত মোট মৃত্যুর মধ্যে সর্বোচ্চ ৫০৪ জনের মৃত্যু হয়েছে বগুড়া জেলায়। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে রাজশাহী জেলায়—২১৩ জনের। এ ছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১৩১ জন, নওগাঁয় ১১৪ জন, নাটোরে ৯৭ জন, জয়পুরহাটে ৪৬ জন, সিরাজগঞ্জে ৪৬ জন এবং পাবনায় ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনায়।

গত বছরের ২৬ এপ্রিল রাজশাহী বিভাগে প্রথম করোনা রোগী মারা যান। করোনায় এ পর্যন্ত মোট মৃত্যুর মধ্যে গত বছর বিভাগে মারা যান ৩৬৬ জন। আর এ বছর এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৮১৭ জন। এর মধ্যে গত জুন মাসেই মারা গেছেন ৩২৬ জন। আর জুলাই মাসে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৩১০ জন।

বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও সুস্থ হয়েছেন ৭৩৮ জন। আগের দিন সুস্থ হয়েছিলেন ১ হাজার ৪৫ জন। নতুন ৭৩৮ জন নিয়ে বিভাগে মোট সুস্থ হয়েছেন ৫১ হাজার ৭৬৮ জন। বর্তমানে বিভাগের আট জেলায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১০ হাজার ১৯৮ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৫৬ জন। বিভাগে হাসপাতালের বাইরে বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১৪ হাজার ৫৫ জন।

রাজশাহী বিভাগী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক হাবিবুল আহসান তালুকদার প্রথম আলোকে বলেন, রাজশাহী বিভাগের আট জেলার মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ, রাজশাহী, জয়পুরহাটে করোনার সংক্রমণ কিছুটা কমেছে। কিন্তু সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, নাটোর, পাবনায় সংক্রমণটা বাড়ছে। তবে বিভাগের হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপ আগের মতো আর নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন