default-image

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আবাসিক হল ও ক্যাম্পাস খোলার দাবিতে চলমান আন্দোলন আগামী বুধবার পর্যন্ত স্থগিত করেছেন। আজ সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে প্রক্টরের আশ্বাসের পর পূর্বঘোষিত কর্মসূচি থেকে তাঁরা এই সিদ্ধান্ত জানান।

আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের শতাধিক শিক্ষার্থী জড়ো হন। সেখানে তাঁরা আজকের কর্মসূচির প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। পরে সেখানে প্রক্টর লুৎফর রহমান উপস্থিত হন। তিনি শিক্ষার্থীদের বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের উচ্চপর্যায়ে কথা বলার আশ্বাস দেন। এতে শিক্ষার্থীরা দিনের কর্মসূচি স্থগিত করেন।

সেখানে শিক্ষার্থীরা সাংবাদিকদের বলেন, তাঁরা দীর্ঘদিন ধরে ক্যাম্পাসের বাইরে আছেন। করোনার কারণে তাঁদের অনেকের অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ হয়ে গেছে। ফলে তাঁদের পক্ষে আর মেসে থাকা সম্ভব হচ্ছে না। তাঁরা ক্লাসরুমে ফিরতে চান।

বিজ্ঞাপন

এ সময় শিক্ষার্থীদের পক্ষে অর্থনীতি বিভাগের খাইরুল ইসলাম বলেন, আগামীকাল মঙ্গলবার ইউজিসির সঙ্গে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের একটি আলোচনা আছে। এ ছাড়া বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের একটি মিটিং আছে। আশা করা হচ্ছে, ইউজিসি থেকে ফেব্রুয়ারির মধ্যে আবাসিক হল খোলার একটি সিদ্ধান্ত আসবে। যদি যৌক্তিক সিদ্ধান্ত না আসে, তাহলে আগামী বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন করে কর্মসূচির সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

এ বিষয়ে প্রক্টর মো. লুৎফর রহমান বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা যে দাবি জানাচ্ছে, তা খুবই যুক্তিযুক্ত। কিন্তু তাদের ন্যূনতম স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার বিষয়টিও ভেবে দেখতে হবে। আমি ব্যক্তিগতভাবে চাই না শিক্ষার্থীরা বাইরে কোথাও থেকে ঝুঁকিতে পড়ুক। আমরা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষসহ সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে বিষয়টি জানাব। তারা যেন সবাইকে সুরক্ষিত রেখে দ্রুত এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেন, তার চেষ্টা করব।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন