default-image

পরীক্ষা ছাড়াই রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে ২০২০ সালের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় নিবন্ধিত শিক্ষার্থীদের সবাই পাস করেছেন। এবার ৭৫৭টি কলেজের ১ লাখ ৪৯ হাজার ৯৭৬ জন পরীক্ষার জন্য নিবন্ধন করেন।

তাঁদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৬ হাজার ৫৬৮ জন, যা গত শিক্ষাবর্ষের তুলনায় চার গুণ বেশি। গত বছর এই শিক্ষাবর্ষ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছিলেন ৬ হাজার ৭২৯ জন শিক্ষার্থী।

করোনাভাইরাসের কারণে ২০২০ সালের উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। শিক্ষার্থীদের এসএসসি ও জেএসসির ফল বিশ্লেষণ করে আজ শনিবার ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, গত শিক্ষাবর্ষে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ৬ হাজার ৭২৯ জন। সে বছর পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১ লাখ ৫১ হাজার ১৩৪ জন, পাসের হার ছিল ৭৬ দশমিক ৩৮।

২০২০ সালে ২৬ হাজার ৫৬৮ জন জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর মধ্যে ছাত্রীদের সংখ্যা ১৪ হাজার ৩, ছাত্রের সংখ্যা ১২ হাজার ৫৬৫। ফরম নিবন্ধন করা ১ লাখ ৪৯ হাজার ৯৭৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৮০ হাজার ১২৯ জন ছাত্র এবং ৬৯ হাজার ৮৪৭ জন ছাত্রী।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞান শাখায় এবার পরীক্ষার্থী ছিলেন ৩৯ হাজার ৯৭ জন। এর মধ্যে ছাত্রীর সংখ্যা ১৭ হাজার ৪৮৫ এবং ছাত্র ২১ হাজার ৬১২ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৯ হাজার ৭২১ জন, যাঁদের মধ্যে ছাত্র ১০ হাজার ৯০ জন এবং ছাত্রী ৯ হাজার ৬৩১ জন।

মানবিক শাখায় অংশ নেন ৯১ হাজার ৭৬৩ জন। তাঁদের মধ্যে ছাত্রী ৪৬ হাজার ১২৭ এবং ছাত্রের সংখ্যা ৪৫ হাজার ৬৩৬। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৫ হাজার ৪৫২ জন। যাঁদের মধ্যে ছাত্র ১ হাজার ৭৯১ জন এবং ছাত্রী ৩ হাজার ৬৬১ জন।

ব্যবসায় শাখায় অংশ নেন ১৯ হাজার ১১৬ জন। যাঁদের মধ্যে ছাত্র ১২ হাজার ৮৮১ জন এবং ছাত্রী ৬ হাজার ২৩৫ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ হাজার ৩৯৫ জন। যাঁদের মধ্যে ছাত্র ৬৮৪ জন এবং ছাত্রী ৭১১ জন।

রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আরিফুল ইসলাম বলেন, এ বছর করোনার কারণে শেষ পর্যন্ত পরীক্ষা নেওয়া যায়নি। এ কারণে পরীক্ষার ফল প্রস্তুত করা হয়েছে শিক্ষার্থীদের জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষার ফলের তুলনামূলক বিশ্লেষণ করে। এ কারণে এবার সবাই পাস করেছেন এবং জিপিএ-৫ বেশি পেয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন