বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, গত ১৫ সেপ্টেম্বর রাতে উপজেলার গালুয়া ইউনিয়নের পুটিয়াখালী এলাকার মো. ফরিদ খন্দকারের বাড়িতে ডাকাতি হয়। এ ঘটনার পরদিন মো. ফরিদ বাদী হয়ে রাজাপুর থানায় অজ্ঞাতপরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে একটি ডাকাতি মামলা করেন। আজ বিকেলে রাজাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল হালিম তালুকদারের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ওই মামলার সন্দেহভাজন আসামি আবুল কালামকে আটক করতে পার্শ্ববর্তী কাঁঠালিয়া উপজেলার ছোট কৈখালী এলাকায় যায়। সেখানে আবুল কালামকে আটকের সময় তাঁর বড় দুই ভাইয়ের স্ত্রী মাহফুজা বেগম, জাহানারা বেগমসহ স্থানীয় ৪০-৫০ ব্যক্তি পুলিশের ওপর হামলা চালান।

পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে কালামসহ তাঁর দুই ভাবিকে আটক করে রাজাপুর থানায় নেয়। অন্য হামলাকারীরা পালিয়ে যান।

এতে রাজাপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল হালিম তালুকদার ও এএসআই নুরুজ্জামান আহত হন। এ সময় আসামি আবুল কালামকে ছিনিয়ে নেওয়ারও চেষ্টা করেন হামলাকারীরা। কিন্তু পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে কালামসহ তাঁর দুই ভাবিকে আটক করে রাজাপুর থানায় নেয়। অন্য হামলাকারীরা পালিয়ে যান। স্থানীয় লোকজন আহত দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে উদ্ধার করে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

রাজাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অপরাধে আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। আহত পুলিশ সদস্যদের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন