বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক মো. আল-ইমরান মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, মহান স্বাধীনতা দিবসে উপজেলা সদরের শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে তাঁরা দলীয় কার্যালয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ নেতা-কর্মীরা মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে এলোপাতাড়ি হামলা চালান। এতে তাঁর বাম হাতের কবজির ওপরের অংশে ধারালো অস্ত্রের আঘাত লাগে। তাঁর সঙ্গে থাকা ছাত্রদলের অপর দুই নেতা রিপন ও রমজানকে পিটিয়ে আহত করা হয়। বর্তমানে আল–ইমরান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন বলে জানান। বাকি দুজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ নেতা-কর্মীরা ছাত্রদলের নেতা–কর্মীদের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে এলোপাতাড়ি হামলা চালান।

অভিযোগের বিষয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. পারভেজ বাবু বলেন, শুনেছি উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক আহত হয়েছেন। তবে কীভাবে আহত হয়েছেন, তা জানা নেই। নিজেদের মধ্যে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের কারণে এ ঘটনা ঘটতে পারে।

রাজাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পুলক চন্দ্র রায় বলেন, হামলার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। লিখিত অভিযোগ পেলে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন