বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, কবিরাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী টিপু সুলতানের সঙ্গে আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী চান মিয়া মাতুব্বরের বিরোধ চলে আসছে। গতকাল রাত সাড়ে আটটার দিকে ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থী কাঞ্চন মাতুব্বর পান্তাপাড়া এলাকায় টিপু সুলতানের একটি নির্বাচনী ক্যাম্প উদ্বোধন করতে যান। এ সময় টিপুর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী চান মিয়া মাতুব্বরের সমর্থক লক্ষ্মণ দাসসহ কয়েকজন কাঞ্চনসহ অন্যদের ওপর হামলা চালান। পরে উভয় পক্ষের কর্মী-সমর্থকেরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে আহত হন উভয় পক্ষের অন্তত আটজন। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

ইউপি সদস্য প্রার্থী কাঞ্চন মাতুব্বরের মামা ইসরাফিল হাওলাদার বলেন, ‘আমাদের নির্বাচনী ক্যাম্প উদ্বোধন করতে না করতেই চান মিয়া মাতুব্বরের লোকজন এসে আমাদের ওপর হামলা চালান। তাঁরা আমাদের দুটি গাড়িও ভাঙচুর করেছেন। হামলায় আমাদের বেশ কয়েকজন লোক আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন।’

এ বিষয়ে চান মিয়া মাতুব্বর বলেন, ‘এটা আমার প্রতিদ্বন্দ্বী টিপু সুলতানের প্যানেলের মেম্বার প্রার্থী কাঞ্চনের সাজানো নাটক। আমার নির্বাচনী মাঠ নষ্ট করার চেষ্টা করা ছাড়া আর কিছু নয়। তাঁদের অভিযোগ সত্য নয়।’

কবিরাজপুর ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী টিপু সুলতান বলেন, চান মিয়া তাঁর লোকজন নিয়ে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালাচ্ছেন। নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করার পাঁয়তারা করছেন। তিনি প্রশাসনের কাছে এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানাচ্ছেন।

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ সাদিক বলেন, কবিরাজপুর ইউপিতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার খবর পেয়েই পুলিশ পাঠানো হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে। এ ঘটনায় কোনো প্রার্থী অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন