default-image

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় দুই কিশোরীকে একই ঘরে রেখে ধর্ষণের ঘটনায় দুই যুবককে আসামি করে মামলা হয়েছে। ওই কিশোরীরা সম্পর্কে মামাতো-ফুপাতো বোন। তাদের বয়স ১২ থেকে ১৩ বছর। গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেন ধর্ষণের শিকার কিশোরীদের বাবা ও মা। আজ মঙ্গলবার ভোরেই আসামিদের অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় আজ বিকেলে ওই দুই কিশোরী নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নুরুন্নাহার ইয়াসমিনের আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে। এদিকে আদালত আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

বিজ্ঞাপন

অভিযুক্ত তরুণেরা হলেন রিফাত মিয়া (১৯) ও রিফাত উদ্দিন (১৯)। তাঁরা দুজন পরস্পরের বন্ধু। দুজনেরই বাড়ি নারায়ণগঞ্জ বন্দর উপজেলায়।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, দুই মাস আগে রিফাত নামের দুই যুবকের (রিফাত মিয়া ও রিফাত উদ্দিন) সঙ্গে পরিচয় হয় ওই দুই কিশোরীর। এরপর মুঠোফোনে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দুই বন্ধু দুই বোনকে বিয়ের আশ্বাস দেন। ২১ সেপ্টেম্বর বিয়ের কথা বলে দুই কিশোরী বোনকে বন্দর উপজেলার নবীগঞ্জে আসতে বলেন দুই বন্ধু। পরে নবীগঞ্জে দেড় হাজার টাকায় একটি ঘর ভাড়া নিয়ে চারজন থাকতে শুরু করেন। সেখানেই দুই বন্ধু মিলে বিয়ে ছড়াই ওই দুই বোনকে ধর্ষণ করেন। পরিবারের লোকজন অনেক খোঁজাখুঁজির পর ২৭ সেপ্টেম্বর সকালে কিশোরীদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করতে সক্ষম হন। এরপর তাঁদের অনুরোধে ওই কিশোরীরা বাড়িতে ফিরে আসে। এসে পরিবারের লোকজনকে তারা ঘটনা খুলে বলে।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফখরুদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েদের ধর্ষণের ঘটনা জানার পর কিশোরীদের একজনের বাবা ও একজনের মা বাদী হয়ে সোমবার রাতে মামলা করেন। পুলিশ মঙ্গলবার ভোরে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত দুই তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে। আদালত তাঁদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ আদালত পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান প্রথম আলোকে জানান, ওই দুই কিশোরী আজ বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নুরুন্নাহারের আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন