default-image

দেশে কোনো গণতান্ত্রিক সরকার নেই বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জা। গতকাল রোববার নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভা কার্যালয়ে মুছাপুরে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের মধ্যে আর্থিক অনুদান বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুদান বিতরণকালে নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র কাদের মির্জার দেওয়া বক্তব্য তাঁর অনুসারী আইযুব আলীর ফেসবুক পেজ থেকে লাইভ করা হয়। পরে আইয়ুব আলী বক্তব্যটি তাঁর পেজ থেকে সরিয়ে ফেলেন। তবে তার আগেই বক্তব্যটি অনেকের কাছে পৌঁছে যায়।

অনুষ্ঠানে কাদের মির্জা বলেন, ‘আজকে সরকারি কর্মচারীরা মনে করে তারা আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনছে। তারা ক্ষমতায় আনছে এটা সত্য। ভোট চুরি করছে ২৫ পারসেন্ট। রাত্রে কেন্দ্রে ভোট বাক্সে ঢুকাইছে। এটা সরকারি কর্মকর্তারা ঢুকাইছে না? এটা তো সত্য। এ জন্য তারা যা ইচ্ছা তাই করে। এ দেশে আমলাতান্ত্রিক সরকার আজকে দেশ পরিচালনা করছে। তাদের নেতৃত্বে আজকে দেশ চলছে। এ দেশে কোনো গণতান্ত্রিক সরকার নেই। কে কী মনে করবে, আমার কিছু যায় আসে না।’

বিজ্ঞাপন

কাদের মির্জা বলেন, ‘আমি জেলের জন্য প্রস্তুত। আমাকে হুমকি দিচ্ছে, আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে যেভাবে নির্যাতন করছে, আমাকে সেভাবে নির্যাতন করবে। আমারে বলছে, চুপ করি ঘরে বসে থাক। আমাকে বলছে নিজেকে প্রকাশিত করতেছ? আমাকে এমপির লোভ দেখাইছে, পদের লোভ দেখাইছে। না পারি বলেছে, যা ইচ্ছা তাই কর।’

এ দেশে আমলাতান্ত্রিক সরকার আজকে দেশ পরিচালনা করছে। তাদের নেতৃত্বে আজকে দেশ চলছে। এ দেশে কোনো গণতান্ত্রিক সরকার নেই।
আবদুল কাদের মির্জা, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র

সেতুমন্ত্রী ও প্রশাসনের বিরুদ্ধে বলা যাবে না—একটি সংস্থা তাঁকে এ হুমকি দিয়েছে, এমন অভিযোগ করে কাদের মির্জা আরও বলেন, ‘এটা কোন রাষ্ট্র, কোন দেশ, এটা কী দেশ, কথা বলা যাবে না। তাহলে আপনারা আইন পাস করে বলে দেন, এ দেশে কেউ সত্য কথা বলিয়ো না।’

কাদের মির্জা প্রধান নির্বাচন কমিশনারের উদ্দেশে বলেন, ‘আপনি একটা কাজ করেন। একটা তন্ত্র পাস করেন জাতীয় সংসদে। দেশের টাকা নষ্ট করে ভোট নেওয়ার দরকার কী? ভোট নেন চুরি করে। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গোয়েন্দা সংস্থা বলেছে, ২৫ পারসেন্ট ভোট আওয়ামী লীগের আছে। এই ২৫ পারসেন্ট ভোট আপনারা কেন্দ্রে নিয়ে আসবেন। বাকি ভোট আমরা বাক্সে ঢুকিয়ে দেব।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন