default-image

কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় রান্নাঘরে মাটি খুঁড়ে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে শহরের মোল্লাতেঘরিয়া এলাকার পূর্ব ক্যানালপাড়ার মুরাদ আলীর বাড়ি থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।

লাশ উদ্ধার হওয়া ওই গৃহবধূর নাম রিমি খাতুন (৩০)। তিনি সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর গ্রামের কেরামত আলীর মেয়ে ও খোকসা উপজেলার শিমুলিয়া ইউনিয়নের কুষ্টিয়া গ্রামের আল আমিন হোসেনের স্ত্রী।

বাড়ির মালিক মুরাদ আলী বলেন, ক্যানালপাড়ার টিনশেড বাড়ি গত ১৫ জানুয়ারি আল আমিনের কাছে এক হাজার টাকায় ভাড়া দেন। ওই বাসায় আল আমিন স্ত্রী নিয়ে বসবাস করতেন। মার্চ মাসের মাঝামাঝি সময়ে আল আমিন জানান, তাঁর স্ত্রী রিমি মায়ের বাড়ি গেছেন। এরপর থেকে বাসায় তালা দেওয়া দেখতে পান। পচা দুর্গন্ধ বের হলে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়ির তালা ভেঙে ভেতরে তল্লাশি করা হয়। এ সময় রান্নাঘরে মাটি খোঁড়ার চিহ্ন পাওয়া যায়। পরে সেখানে খুঁড়ে গৃহবধূ রিমি খাতুনের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।

কুষ্টিয়া মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নিশিকান্ত সরকার প্রথম আলোকে বলেন, রিমি খাতুনের দ্বিতীয় স্বামী আল আমিন। কুষ্টিয়া শহরে একটি হোটেলে কর্মচারীর কাজ করতেন তিনি। কী কারণে রিমিকে হত্যা করা হয়েছে, তা এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না।
পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় রিমির বড় বোন আলপনা খাতুন বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা করেছেন। অভিযুক্ত আল আমিন পলাতক। তাঁকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন