বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে গ্রামের পাঁচ শিশু নদীর পাড়ে খেলা করছিল। একসময় নদীর পাড় ধসে পড়ায় তাঁরা পানিতে পড়ে যায়। স্থানীয় লোকজন তিন শিশুকে উদ্ধার করতে পারলেও দুজন নিখোঁজ হয়। একপর্যায়ে তাসফিয়া নূর জোহরাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এরপর দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে দমকল বাহিনীর ডুবুরিরা ও স্থানীয় লোকজন নদীতে তল্লাশি চালিয়ে জান্নাতুল মাওয়ার লাশ উদ্ধার করেন।

দুই মেয়েকে হারিয়ে দিশাহারা আবদুল করিম। কাঁদতে কাঁদতে বারবার মূর্ছা যাচ্ছিলেন তিনি। খবর পেয়ে এলাকার লোকজন ওই বাড়িতে ভিড় করেন। এ সময় আবদুল করিম ও তাঁর স্ত্রীর আহাজারিতে তাঁদের চোখ আর্দ্র হয়ে ওঠে। রামু থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জহির উদ্দিন বলেন, দুই শিশুর লাশ দাফনের জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন