default-image

সিলেটের বিশ্বনাথে রাস্তায় পড়ে ছিল মিজান আহমদের লাশ। এ নিয়ে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে চিকিৎসকেরা নিশ্চিত করেছেন উচ্চ রক্তচাপের কারণে স্ট্রোক করেছেন মিজান আহমদ।

 মিজান আহমদ (৫৭) বিশ্বনাথের খাজাঞ্চি ইউনিয়নের বিলপার গোবিন্দনগর জামে মসজিদে প্রায় ২৫ বছর ধরে ইমামতি করছিলেন। এ ছাড়া তিনি তেলিকোনা আলিম মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করতেন।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা দুইটার দিকে বিশ্বনাথের খাজাঞ্চি ইউনিয়নের কান্দিগ্রাম-রেলওয়ে ব্রিজ সড়কের পাশে তাঁকে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় ব্যক্তিরা উদ্ধার করে বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ‌্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

খাজাঞ্চি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তালুকদার গিয়াস উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, ‘মিজান আহমদ আমার নিজ গ্রামের মসজিদে ইমামতি করতেন। তাঁর উচ্চ রক্তচাপ ছিল। আজ সকালে তিনি মসজিদের মোতোয়ালিকে জোহরের নামাজ পড়াতে বলে পাশের পাখিচিরি গ্রামে দাওয়াতে গিয়েছিলেন। সে সময় তিনি পুরো সুস্থ ছিলেন। বেলা দুইটার দিকে স্থানীয় ব্যক্তিরা কান্দিগ্রাম-রেলওয়ে ব্রিজ সড়কের পাশে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে আমাকে খবর দেন। ধারণা করা হচ্ছে দাওয়াত খেয়ে মসজিদে ফেরার পথে তিনি স্ট্রোক করেছেন।’

স্থানীয় ব্যক্তিদের সহযোগিতায় ইমামকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ‌্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব‌্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। চিকিৎসকের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, মিজান আহমদ উচ্চ রক্তচাপের কারণে স্ট্রোক করে মারা গেছেন। তাঁর বাড়ি কুমিল্লায়। পরিবারের লোকজনকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। বিশ্বনাথে জানাজা শেষে লাশ কুমিল্লায় পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

বিশ্বনাথ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. কামরুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, সড়কে ওপর লাশ দেখে এলাকায় করোনার আতঙ্ক দেখা দিয়েছিল। পরে চিকিৎসকেরা নিশ্চিত করেছেন উচ্চ রক্তচাপের কারণে স্ট্রোক করেছেন মিজান আহমদ। এতেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন