default-image

বগুড়ার ধুনটে উপজেলা প্রশাসনের অভিযানের খবরে রাস্তা থেকেই বরপক্ষ ফিরে যাওয়ায় একটি বাল্যবিবাহের আয়োজন পণ্ড হয়ে গেছে। বাল্যবিবাহের আয়োজন করার অপরাধে তাৎক্ষণিক ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে কনেপক্ষকে জরিমানা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার ধামাচামা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবদুল্লাহ আল রণী। এ সময় মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা আশরাফ আলীসহ পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ধুনট উপজেলার একটি বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক ছাত্রীর বিয়ে ঠিক হয় জেলার গাবতলী উপজেলার পলাশবাড়ি গ্রামের এক তরুণের সঙ্গে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাঁদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। সেই হিসেবে কনেপক্ষের বাড়িতে চলছিল বিয়ের আয়োজন। এ সময় উপজেলা প্রশাসন খবর পেয়ে বিয়েবাড়িতে উপস্থিত হয়। এই খবর ছড়িয়ে পড়লে রাস্তা থেকে বর ও তাঁর পক্ষের লোকজন পালিয়ে যায়। পরে বাল্যবিবাহের আয়োজন করার দায়ে কনেপক্ষকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সেই সঙ্গে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত মেয়ের বিয়ে না দেওয়ার মুচলেকা নেওয়া হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবদুল্লাহ আল রণী বলেন, বরপক্ষের লোকজন আগেই প্রশাসনের উপস্থিতির বিষয়টি জানতে পেরে রাস্তা থেকে পালিয়ে গেছে। এ কারণে তাঁদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা যায়নি। তবে বাল্যবিবাহের আয়োজন করার অভিযোগে কনেপক্ষকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করে মুচলেকা নেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0