বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আশুলিয়া থানার পুলিশ ও উত্তরা ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, গতকাল রাত ১০টার দিকে উত্তরার দিকে থেকে একটি ব্যক্তিগত গাড়ি আশুলিয়ার দিকে যাচ্ছিল। এটি টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের মরাগাং এলাকায় পৌঁছালে চালক নিয়ন্ত্রণ হারান। তখন গাড়িটি তুরাগ নদে পড়ে যায়। এ সময় গাড়ির ভেতরে থাকা তিনজন আরোহীর মধ্যে দুজন বের হতে পারলেও ভোলা ভেতরে আটকে পড়েন। খবর পেয়ে আশুলিয়া থানা-পুলিশের একটি টহল দল ঘটনাস্থলে যায়। পরে পথচারীদের সহায়তায় ব্যক্তিগত গাড়ির ভেতর থেকে ভোলাকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। মো. রাজু ও দিপু মহন্ত গাড়ি থেকে বের হয়ে সাঁতরে পাড়ে ওঠেন। পরে উত্তরা ফায়ার সার্ভিসের একটি দল পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধারকাজে সহযোগিতা করে। দিবাগত রাত দুইটার দিকে নদ থেকে ব্যক্তিগত গাড়িটি উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়।

উত্তরা ফায়ার সার্ভিসের জ্যেষ্ঠ স্টেশন কর্মকর্তা মনির হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, দ্রুতগতির কারণে মূল সড়ক থেকে ছিটকে গিয়ে গাড়িটি তুরাগ নদে পড়ে যায়।

আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আউয়াল হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ভোলার লাশ থানায় রেখে তাঁর পরিবারের সদস্যদের খবর দেওয়া হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন