বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রূপগঞ্জ থানা-পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, নাওড়া কায়েতপাড়ায় ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের বাড়ি। সদ্য সমাপ্ত ইউপি নির্বাচনে তাঁর ভাই মিজানুর রহমান নৌকার প্রার্থী জাহেদ আলীর কাছে পরাজিত হন। গতকাল বৃহস্পতিবার ফলাফল ঘোষণার পর নাওড়ায় রফিকুল ও জাহেদ আলীর সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর জেরে শুক্রবার সন্ধ্যায় রফিকুলের সমর্থক ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিন ও তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী মোশারফ হোসেনের লোকজনের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, ইট–পাথর নিক্ষেপ ও ঘরবাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষের একপর্যায়ে ককটেল বিস্ফোরণ ও গুলি ছোড়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় লিপি আক্তার বুকে গুলিবিদ্ধ হন। মোশারফ নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান জাহেদ আলীর সমর্থক।

এ ঘটনায় অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। আহত ব্যক্তিদের মধ্যে নাওড়া এলাকার নূর আমিন, নয়ন সাউদ, নীরব হোসেন, রাজু আহমেদ, জয়নাল আবেদিন, ওয়াসিম, জিয়াউর রহমান ও ফয়সাল হোসেনের নাম জানা গেছে। আহত ব্যক্তিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

খবর পেয়ে রূপগঞ্জ থানা-পুলিশ, বিজিবি, র‍্যাব ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ঘটনার পর থেকে এলাকায় থমথমে ভাব বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে নাওড়ায় অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে।

গুলিবদ্ধ লিপির মা জোছনা আক্তার প্রথম আলোকে বলেন, তিনিসহ আওয়ামী লীগের লোকজন তাঁদের নির্বাচনী ক্যাম্প থেকে ফেরার পথে ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিনের নেতৃত্বে লোকজন তাঁদের ওপর হামলা চালান। এ সময় রুবেল নামে জসিম উদ্দিনের এক সমর্থকের গুলিতে তাঁর মেয়ে গুলিবিদ্ধ হন।

এ বিষয়ে কথা বলতে ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিনের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করা হলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে অন্তত চারজন প্রত্যক্ষদর্শী প্রথম আলোকে বলেন, সংঘর্ষের সময় নাওড়া এলাকার আফাজ উদ্দিনের ছেলে মো. রুবেল (২৫), মৃত আলী আহাম্মদের ছেলে মোজাম্মেল ওরফে কানা মোজাম্মেল, সিরাজুল ইসলামের ছেলে মিনারুল (২৫), গোপালগঞ্জের ডুমুরিয়া মকসুদপুর এলাকার সামসুদ্দিনের ছেলে মো. নাসিরসহ আরও বেশ কয়েকজনকে তাঁরা আগ্নেয়াস্ত্র হাতে ছোটাছুটি করতে দেখেছেন।

নারায়ণগঞ্জের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার (গ-সার্কেল) আবির হোসেন বলেন, ‘মোশারফ ও জসিম উদ্দিনের মধ্যে আগে থেকেই বিরোধ চলছিল। শুক্রবার সন্ধ্যায় তাঁদের মধ্যে সংঘর্ষে গুলি ছোড়ার ঘটনা ঘটেছে। আমরা ঘটনাস্থল থেকে তিনটি গুলির খোসা উদ্ধার করেছি। এলাকায় একটি অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প বসানো হয়েছে। জড়িত ব্যক্তিদের আটকের চেষ্টা চলছে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন