বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলার এজাহার ও পুলিশ সূত্র জানায়, গতকাল বুধবার রাতের খাবার খেয়ে সাকিবের পরিবারের সবার সঙ্গে ঘুমিয়ে পড়েন। ভোরে সাকিবকে ঘরে না দেখতে পেয়ে তাঁর মা খুঁজতে থাকেন। অনেক খোঁজাখুঁজির পর বাড়ির পাশের বিলের ভেতর হেলে থাকা একটি রেইনট্রির ডালের সঙ্গে গলায় দড়ি দেওয়া অবস্থায় হাত, পা ও মুখ বাঁধা ঝুলন্ত সাকিবকে দেখতে পান। এ সময় সাকিবের মা আর্তচিৎকার শুরু করলে ঘটনাস্থলে লোকজন জড়ো হন। তাঁরা পুলিশকে খবর দেন।

অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা করলেও মামলার বাদী বজলুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, অনেক দিন ধরে তাঁর সঙ্গে গ্রামের সালাউদ্দিনসহ কয়েকজনের জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। বিভিন্ন সময় সালাউদ্দিন পক্ষ তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করেছেন। তাঁরাই হয়তো তাঁর ছেলে সাকিবকে রাতে হত্যা করে গাছের সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখেছেন। এখন মামলার তদন্তে বেরিয়ে আসবে কে অপরাধী।

এ ব্যাপারে মো. সালাউদ্দিন বলেন, তাঁদের সঙ্গে বজলুর রহমানের জমি নিয়ে বিরোধ ছিল, বিরোধ নিয়ে মামলাও করেছেন সত্য। তবে পরে স্থানীয় ব্যক্তিরা এর সমাধান করেছেন। এখন কোনো বিরোধ নেই। সাকিবের মৃত্যুতে তাঁদের কোনো হাত নেই। তাঁকে ফাঁসাতেই সালাউদ্দিন পক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলছেন বজলুর।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন