বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সকালে ‘brur চান্স ১০০% করে দিব’ নামের গ্রুপ থেকে একটি বার্তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে শেয়ার করা হয়। ওই বার্তায় বলা হয়, ‘যারা বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পায়নি, তাদের চান্স পেয়ে দেব। এতে খরচ হবে ২০ হাজার টাকা। অগ্রিম পেমেন্ট করতে হবে ৮৫০ টাকা।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে পাওয়া তথ্য ঘেঁটে জানা গেছে, এক ব্যক্তি তাঁর ছোট বোনের ভর্তির জন্য ওই গ্রুপে কথা বলেছেন। এরপর দুই পক্ষের কথা হলে প্রতারক চক্রের পক্ষ থেকে একটি বিকাশ নম্বর দেওয়া হয়। তদন্তের কারণে বিকাশ নম্বরটি প্রকাশ করা হলো না।

জানতে চাইলে মহানগর পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, পুরো ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কোনো কিছু উদ্‌ঘাটন হলে অবশ্যই জানানো হবে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর গোলাম রব্বানী প্রথম আলোকে বলেন, একটি প্রতারক চক্র শিক্ষার্থীদের দুর্বল জায়গায় আঘাত করে ভর্তির প্রলোভন দেখাচ্ছে। কিন্তু এর কোনো সুযোগ নেই। প্রতারক চক্রটি আর্থিক সুবিধার জন্যই এমন প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে ধারণা করা হচ্ছে। চান্স না পেয়ে ভর্তির কোনো সুযোগই পেতে পারে না।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এরই মধ্যে ১ জানুয়ারি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে একটি চক্র জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তির প্রলোভন দিচ্ছে বলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নজরে এসেছে। কোনো একটি অসাধু চক্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির বিষয়ে ভুয়া তথ্য সরবরাহ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নসহ প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার পাঁয়তারা করছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন