বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, বুস্টার ডোজ দেওয়ার যাবতীয় কার্যক্রম চলমান রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুস্টার ডোজ দেওয়ার জন্য অনুমোদন দিয়েছেন। সুরক্ষা অ্যাপ হালনাগাদ করার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। বুস্টার ডোজ দেওয়ার তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। দেশে টিকার কোনো অভাব নেই। এখন সাত লাখ ফাইজারের টিকা হাতে আছে। আগামী মাসে আরও দুই কোটি টিকা আসবে। সব মিলিয়ে দেশে এখন ৪ কোটি ৭৫ লাখ ডোজ টিকা রয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, প্রথমে সম্মুখসারির ব্যক্তি চিকিৎসক, নার্স, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, গণমাধ্যমকর্মী এবং বয়স্ক লোকজনকে এ বুস্টার ডোজের আওতায় আনা হবে। দেশের প্রায় সাত কোটি লোককে করোনাভাইরাসের প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে এবং প্রায় সাড়ে চার কোটি মানুষকে দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়া সম্পূর্ণ হয়েছে। দেশের ১২ কোটি মানুষকে টিকার আওতায় আনা হবে। তবে ইতিমধ্যে ৩০ ভাগ মানুষকে দুই ডোজ করে টিকা দেওয়া সম্ভব হয়েছে।

পিঠাপুলি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক আবদুল লতিফ, পৌর মেয়র রমজান আলী, সাটুরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মজিদ প্রমুখ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন