বিজ্ঞাপন

স্থানীয় লোকজন ও জনপ্রতিনিধিরা বলেন, বিকেল ৩টার দিকে মোহাম্মদ ওসমান ওই প্রতিবন্ধী কিশোরীকে মুঠোফোন দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ি থেকে গাড়িতে তুলে নিয়ে যান। এ সময় কিশোরীর মা-বাবা বাড়িতে ছিলেন না। এলাকার লোকজন কিশোরীকে নেওয়ার সময় দেখতে পান। সঙ্গে সঙ্গে পাড়াবাসী তাকে খোঁজাখুঁজি করেন। তাঁরা পার্শ্ববর্তী রোয়াংছড়ি উপজেলার একটি সেগুন বাগান থেকে ধর্ষণচেষ্টার সময় মোহাম্মদ ওসমানকে আটক ও কিশোরীকে উদ্ধার করেন।

মোহাম্মদ ওসমানের বাড়ি বান্দরবান জেলা শহরের বালাঘাটা এলাকার ভরাখালিতে। তিনি গাড়িতে করে বেকারি থেকে বিস্কুট, কেক ও বিভিন্ন মালামাল সরবরাহ করেন।
কিশোরীর পাড়ার বাসিন্দা ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের একজন সদস্য বলেন, আটক মোহাম্মদ ওসমানকে পুলিশে সোপর্দ দেওয়া হয়েছে। প্রতিবন্ধী কিশোরীটিকে ধর্ষণ চেষ্টা বলা হচ্ছে। তবে স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর বোঝা যাবে, ওই সময়ের মধ্যে সে ধর্ষণের শিকার হয়েছে কি না।

রোয়াংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌহিদ কবির বলেন, প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে গাড়িতে তুলে নিয়ে ধর্ষণচেষ্টার মামলায় মোহাম্মদ ওসমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য কিশোরীকে বান্দরবান সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন