বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

লক্ষ্মীপুর সদর থানা–পুলিশের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে চেয়ারকোচ ইকোনো বাস রাত ১০টার দিকে লক্ষ্মীপুর আসে। যাত্রীদের বাসস্ট্যান্ডে নামিয়ে দিয়ে গাড়িটি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে ঢাকা-লক্ষ্মীপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে রাখা হয়। তখন গাড়িতে নতুন একজন বাসচালকের সহকারী, সুপারভাইজার রিয়াদ হোসেন, পুরোনো স্টাফ শিপন ও চালক নাহিদ ছিলেন। এ সময় রিয়াদ ও চালকের নতুন সহকারীকে বাসে রেখে নাহিদ ও শিপন বাসায় চলে যান। সাহ্‌রির সময় ভোর চারটার দিকে এসে গাড়ির ভেতর রিয়াদের রক্তাক্ত লাশ পড়ে থাকতে দেখেন নাহিদ। তখন তিনি স্থানীয় লাইনম্যান মো. সেলিমকে জানান। সেলিমের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাশটি উদ্ধার করে। ঘটনার পর থেকে চালকের নতুন সহকারী পলাতক। তাঁর পরিচয় জানতে পারেনি কেউই।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসীম উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, রিয়াদ হোসেনকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাসচালককে আটক করা হয়েছে। তদন্তের পর এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন