বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ছালেহ উদ্দিন কর্মী-সমর্থক নিয়ে নির্বাচনী প্রচারে বের হন। তাঁরা মিয়ার হাট এলাকায় পৌঁছালে নৌকা প্রতীকের সমর্থক ৮-১০ জন তাঁর ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে মারধর করেন। একপর্যায়ে অস্ত্র ঠেকিয়ে তাঁকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর হুমকি দেওয়া হয়। তাঁর দুই সমর্থককেও মারধর করা হয়েছে। এ সময় স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে চেয়ারম্যান প্রার্থী ছালেহ উদ্দিনকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করান।

ছালেহ উদ্দিনের বড় ছেলে ফেরদৌস হাসান বলেন, ‘নৌকার সমর্থকেরা হঠাৎ আমাদের ওপর হামলা চালায়। অস্ত্র ঠেকিয়ে বিভিন্ন রকম ভয় দেখায়। আওয়ামী লীগ প্রার্থীর অস্ত্রধারী লোকজন আমাদের ওপর কোনো কারণ ছাড়াই এ ঘটনা ঘটিয়েছে। আমার হাত ও পায়ে লাঠির আঘাতে জখম হয়েছে।’

দাসেরহাট পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) মফিজ উদ্দিন বলেন, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর ওপর হামলার ঘটনাটি তিনি শুনেছেন। তবে এ বিষয়ে থানায় কেউ অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ছালেহ উদ্দিন কুশাখালী ইউনিয়নে বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে আগে জড়িত ছিলেন। ঘোড়া প্রতীকে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ২৬ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নসহ ১৫টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন