default-image

লক্ষ্মীপুরে লোকমান হোসেন (৬৩) নামে এক বৃদ্ধকে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে। পাওনা ২০০ টাকা না দেওয়ায় খোরশেদ নামে এক অটোরিকশার মালিকের বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চররুহিতা ইউনিয়নের চররুহিতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। লোকমান চররুহিতা গ্রামের চৌকিদার বাড়ির বাসিন্দা। ওই অটোরিকশার মালিক খোরশেদ একই এলাকার সিরাজ উল্যা পালোয়ানের ছেলে।

পুলিশ ও কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বৃদ্ধ লোকমান ভাড়ায় খোরশেদের অটোরিকশা চালাতেন। কিছুদিন আগে তিনি খোরশেদের রিকশা চালানো বন্ধ করে দেন। কিন্তু তাঁর কাছে খোরশেদ ২০০ টাকা পেতেন। গতকাল তাঁর গতিরোধ করে পাওনা টাকা দাবি করেন খোরশেদ। টাকা পরে দেওয়ার কথা বলতেই খোরশেদ তাঁকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে মাটিতে ফেলে দেন। একপর্যায়ে খোরশেদ বুকের ওপর উঠে গলা টিপে তাঁকে হত্যা করেন। স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে খোরশেদ ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান। পরে লোকমানকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

লোকমানের চাচাতো ভাই মুরাদ হোসেন বলেন, ‘আমার ভাইয়ের কাছে খোরশেদ ২০০ টাকা পেতেন। রাস্তার ওপর খোরশেদ টাকা চাইলে ১০০ টাকা করে আমার ভাই শুক্র ও সোমবার পরিশোধ করবেন বলেন। কিন্তু খোরশেদ এতে রাজি না হয়ে আমার ভাইকে গলা টিপে হত্যা করেন।’

লোকমানের ছেলে রাকিব হোসেন বলেন, ‘খোরশেদ পাওনা টাকার জন্য নির্মমভাবে মেরে গলা টিপে আমার বাবাকে হত্যা করেছেন। আমি তাঁর বিচার চাই।’
লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন বলেন, ২০০ টাকা নিয়ে হাতাহাতির ঘটনায় খুন হন লোকমান। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। খোরশেদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন