default-image

সুনামগঞ্জে ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাদের পর এবার লটারির মাধ্যমে ৫৫টি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সচিবদের নতুন কর্মস্থলে বদলি করা হয়েছে। আজ সোমবার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুল আহাদ এ–সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করেছেন। এর আগে কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে লটারি হয়। জেলায় ৮৮টি ইউনিয়ন পরিষদ আছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, কর্মকর্তাদের বদলির সময় হলে পছন্দের কর্মস্থলে যেতে বা যেখানে আছেন, সেখানে থাকতে বিভিন্নভাবে তদবির শুরু হয়। এসব ঝামেলা এড়াতে এবং স্বচ্ছতা নিশ্চিতের লক্ষ্যে গত ২৪ আগস্ট জেলার বিভিন্ন ভূমিসেবা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ২৮ জন ইউনিয়ন ভূমি সহকারী ও উপসহকারী কর্মকর্তাদের লটারির মাধ্যমে নতুন কর্মস্থলে বদলি করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুল আহাদ। এসব কর্মকর্তার উপস্থিতিতে লটারি হয়।

এবার জেলার ৫৫টি ইউপি সচিবদের একইভাবে বদলি ও পদায়ন করা হয়েছে। এসব কর্মকর্তাকে বৃহস্পতিবারের মধ্যে নতুন কর্মস্থলে যোগ দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

জেলা প্রশাসনের এক কর্মকর্তা বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের সচিবদের মধ্যে যাঁদের নতুন কর্মস্থলে বদলি ও পদায়ন করা হয়েছে, তাঁদের অনেকেই ৫ থেকে ১০ বছর ধরে একই কর্মস্থলে ছিলেন। আবার অনেকেই আছেন যাঁরা দীর্ঘদিন ধরে জেলার দুর্গম হাওর এলাকায় কাজ করছেন। লটারি হওয়ার পরও কেউ কেউ পছন্দের জায়গায় যেতে নানাভাবে চেষ্টা করছেন। কিন্তু লটারির পর আর কোনো পরিবর্তন হয়নি। সে অনুযায়ী অফিস আদেশ জারি করা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ইউপি সচিব বলেন, এই প্রক্রিয়ায় বদলি ও পদায়নে প্রায় সবাই খুশি। এতে কারও কোনো ক্ষোভ নেই। তবে নারীদের ক্ষেত্রে বিশেষ বিবেচনার সুযোগ থাকলে মনে হয় ভালো হতো।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুল আহাদ বলেছেন, ‘সব ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত এবং শুদ্ধাচার চর্চার জন্যই সুনামগঞ্জে আমরা এই প্রক্রিয়ায় বদলি ও পদায়নের বিষয়টি শুরু করেছি। সংশ্লিষ্ট সবাই এই প্রক্রিয়াকে স্বাগত জানিয়েছেন। আমরা চাই কর্মকর্তারা নিজেদের দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রেও সব সময় শুদ্ধাচারের চর্চা করবেন এবং মানুষের সেবায় কাজ করবেন।’

মন্তব্য পড়ুন 0