বিজ্ঞাপন

কুষ্টিয়া হাইওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল খালেক জানান, শফিউল ও মামাতো ভাই এনামুল ইসলাম মোটরসাইকেলে যাচ্ছিলেন। আজ সকাল ৭টার দিকে তাঁরা কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের মধুপুর এলাকায় পৌঁছালে রডবোঝাই একটি বড় লরির সঙ্গে ধাক্কা লাগে। ঘটনাস্থলেই এনামুলের মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পর শফিউল আজম মারা যান।

নিহত শফিউলের ভায়রা হোসেন ইমাম বলেন, করোনাকালে কলেজের কাজে মাঝেমধ্যে সাতক্ষীরা যেতেন শফিউল। কাজ শেষে বাড়ি ফিরতেন। গতকাল মঙ্গলবার মামাতো ভাইকে নিয়ে সাতক্ষীরা গিয়েছিলেন। কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়েন। শফিউলের বাঁ পা থেঁতলে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে হাসপাতালে নেওয়ার পর তিনি মারা গেছেন। হোসেন ইমাম আরও বলেন, শফিউলের স্ত্রী ও দুই ছেলে আছে। বড় ছেলে কুষ্টিয়া জিলা স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র। ছোট ছেলে একই স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন