লাইনচ্যুত হওয়া ট্রেনের ওয়াগন থেকে জ্বালানি তেল সংগ্রহ করেতে ভিড় করছেন স্থানীয় লোকজন। বালতি,পাতিল, বোতলে জ্বালানি তেল সংগ্রহ করে নিয়ে যাচ্ছেন তাঁরা। মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের সাতগাঁও রেলস্টেশন এলাকায়
লাইনচ্যুত হওয়া ট্রেনের ওয়াগন থেকে জ্বালানি তেল সংগ্রহ করেতে ভিড় করছেন স্থানীয় লোকজন। বালতি,পাতিল, বোতলে জ্বালানি তেল সংগ্রহ করে নিয়ে যাচ্ছেন তাঁরা। মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের সাতগাঁও রেলস্টেশন এলাকায় প্রথম আলো

কারও হাতে বালতি, কারও হাতে পাতিল, কারও হাতে জগ, আবার কারও হাতে প্লাস্টিকের বড় গামলা। সবাই এসব পাত্রে জ্বালানি তেল সংগ্রহ করে বাড়ি নিয়ে যাচ্ছে। কার আগে কে তেল নিয়ে যাবে, তা নিয়ে যেন চলছে প্রতিযোগিতা। আজ শনিবার সিলেট–আখাউড়া রেলপথের মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের সাতগাঁও এলাকায় গিয়ে এই বিরল দৃশ্য দেখা গেছে।

বিজ্ঞাপন

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, শনিবার শ্রীমঙ্গল উপজেলার সাতগাঁও এলাকায় সিলেটগামী একটি মালবাহী ট্রেনের তেলবাহী সাতটি ওয়াগন লাইনচ্যুত হয়। এ সময় স্থানীয় লোকজন লাইনচ্যুত হওয়া ওয়াগন থেকে গড়িয়ে পড়া জ্বালানি তেল নিতে হুমড়ি খেয়ে পড়ে। তারা বোতল, জগ, পাতিল ও বালতি নিয়ে তেল সংগ্রহ করে নিয়ে যায়। পুলিশ বারবার চেষ্টা করেও তাদের নিবৃত্ত করতে পারেনি। এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার সময় সাতগাঁও রেলস্টেশনের পাশে ট্রেনের ওয়াগনগুলো লাইনচ্যুত হয়।
রেলওয়ে সিলেট অঞ্চলের সিনিয়র সহকারী ইঞ্জিনিয়ার দুলাল চন্দ্র দাশ বলেন, ইঞ্জিনসহ সাতটি ওয়াগন লাইনচ্যুত হয়। কুলাউড়া থেকে আসা উদ্ধারকারী ট্রেন ওয়াগনগুলো উদ্ধারের চেষ্টা করছে। আখাউড়া থেকে আরেক উদ্ধারকারী ট্রেন আসছে।

মেঘনা পেট্রোলিয়াম করপোরেশন লিমিটেড সিলেট অঞ্চলের ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন বলেন, এই তেলগুলো মেঘনা পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের। এখানে প্রায় ১ লাখ ৬০ হাজার লিটার অকটেন, কেরোসিন ও ডিজেল রয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0