বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

লালপুর আমলি আদালতের জিআরও বেলাল হোসেন জানান, শুনানি শেষে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সুলতান মাহমুদ আসামিদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন। পরে তাঁদের জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সরকারি ওই দিঘির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দুই পক্ষের বিবাদ মীমাংসার উদ্যোগ নেয় পুলিশ। এর মধ্যেই ২৯ অক্টোবর ভোরে হামলায় মখলেছুর রহমান নিহত হন। ময়নাতদন্ত শেষে পরদিন দুপুরে ঈশ্বরপাড়া গ্রামে মখলেছুর রহমানের লাশ দাফন করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী মরিয়ম বেগম বাদী হয়ে ৩৭ জনসহ অজ্ঞাতনামা ১৫ জনের নামে লালপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন