বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

লিখন আলী বলেন, অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা জুয়েলের দুই পা ও এক হাতের রগ কেটে ফেলে এবং শরীরের অন্যান্য স্থানেও এলোপাতাড়ি কুপিয়েছে। প্রচুর রক্তক্ষরণের কারণে সে কথা বলতে পারছিল না। নির্বাক অবস্থায় পড়ে ছিল।

লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) সুরুজ্জামান শামীম প্রথম আলোকে বলেন, ধারালো অস্ত্র দিয়ে দুই পায়ের ও এক হাতের রগ কেটে ফেলায় জুয়েলের শরীর থেকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়েছে। হাসপাতালে আনার সময় তিনি মুমূর্ষু ছিলেন। চিকিৎসা শুরুর পরপরই তাঁর মৃত্যু হয়।

নিহত জুয়েলের মামা মন্টু আলী বলেন, গতকাল রাত ১০টার দিকে তিনি দিলালপুর বাজারে তাঁর ভাগ্নে জুয়েল আলীকে কেরাম খেলতে দেখেছেন। ওই সময় জুয়েল বাজারের একটি দোকান থেকে চা পান করে বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন। সকালে গুরুতর জখম অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করা হয়।

নিহত ব্যক্তির বাবা সাকেম আলী বলেন, বাজার থেকে বাড়ি ফেরার সময় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তাঁর ছেলেকে ধরে নিয়ে পায়ের রগ কেটে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে।

লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ফজলুর রহমান বলেন, হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত রহস্য উদ্‌ঘাটনে থানা–পুলিশের একাধিক শাখা তদন্ত শুরু করেছে। ঘাতক শনাক্ত হওয়া মাত্র গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হবে। তিনি জানান, আজ দুপুর পর্যন্ত এ ঘটনায় মামলা হয়নি, তবে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন