default-image

নরসিংদীর মাধবদীতে পাশের বাড়ির একটি লিচুগাছ থেকে লিচু চুরি করতে গিয়েছিল তিন কিশোর। তবে লিচু চুরি ঠেকাতে ওই গাছে বিদ্যুৎ-সংযোগ দিয়ে রেখেছিলেন গাছটির মালিক। লিচু চুরি করতে গিয়ে ওই তিন কিশোরের একজন বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে। নিহত কিশোরের নাম সোহাগ মিয়া (১৪)। সে মাধবদীর নওপাড়া এলাকার গিয়াস উদ্দিনের ছেলে।

গতকাল সোমবার রাত ১১টার দিকে মাধবদীর নওপাড়াতে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আজ মঙ্গলবার দুপুরে নিহত কিশোরের বাবা গিয়াস উদ্দিন বাদী হয়ে মাধবদী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, দুর্ঘটনার পর থেকেই লিচুগাছটির মালিক আবদুর রহমান পলাতক। ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁর বাড়িঘর এলাকাবাসী তালাবদ্ধ করে রেখেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, লিচুগাছটি মাধবদীর নওপাড়া এলাকার আবদুর রহমানের। তাঁর লিচুগাছ থেকে প্রতিরাতেই কে বা কারা লিচু চুরি করে নিয়ে যাচ্ছিল। কয়েক দিন ধরে প্রতি রাতেই চুরি করতে আসা কিশোর-যুবকদের তাড়া করতেন আবদুর রহমান। পরে চোরের উপদ্রব থেকে লিচু রক্ষা করতে গাছে বিদ্যুৎ-সংযোগ দেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও নিহতের স্বজনেরা জানান, সোমবার রাত ১১টার দিকে ওই এলাকার সোহাগ, রানা ও বাবু নামের তিন কিশোর লিচু চুরি করতে সেখানে যায়। গাছে হাত দেওয়ামাত্র সোহাগ বিদ্যুতায়িত হয়। পরে রানা ও বাবুর চিৎকারে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে এসে সোহাগকে উদ্ধার করেন। পরে নরসিংদী সদর হাসপাতাল নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয়রা জানান, দুর্ঘটনার পর থেকেই লিচুগাছটির মালিক আবদুর রহমান পলাতক। ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁর বাড়িঘর এলাকাবাসী তালাবদ্ধ করে রেখেছেন।

মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দুজামান জানান, সোহাগ নামের এক কিশোর তার বন্ধুদের নিয়ে লিচু চুরি করতে গিয়ে গাছে দেওয়া বিদ্যুৎ-সংযোগে স্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে। তার মরদেহ নরসিংদী সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন