বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরে সাপটি ইউনিয়নের গভীর জঙ্গলে নিয়ে বন বিভাগের সহযোগিতায় সাপটি ছেড়ে দেওয়া হয়। সাপটি ছেড়ে দিতে সাপুড়ের সঙ্গে যান ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আবুল হাশেম। তিনি জানান, গত মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে মধ্য পারুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশের পুকুরপাড়ে স্থানীয় লোকজন অজগরটি দেখতে পান। পরে সাপুড়ে সুরেশ মালাকার অজগরটি উদ্ধার করে নিয়ে যান।

চট্টগ্রাম উত্তর বন বিভাগের ইছামতী রেঞ্জ কর্মকর্তা মোহাম্মদ খসরুল আমিন বলেন, সাপুড়ে অজগরটি ধরে নিয়ে যাওয়ার খবর পেয়ে তাঁরা ঘটনাস্থলে যান। সাপুড়েকে বুঝিয়ে বলার পর তিনি সাপটি বনে ছেড়ে দিতে রাজি হন। সাপটির রং অনেকটা সবুজ, দৈর্ঘ্য ৯ ফুট, ওজন ১০ কেজি। খাবারের সন্ধানে সাপটি লোকালয়ে আসতে পারে ধারণা করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন