বিজ্ঞাপন

নির্বাচন কমিশন গত ৭ সেপ্টেম্বর মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র পদে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। পরদিন ৮ সেপ্টেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেনের কার্যালয়ে উপনির্বাচনে দলীয় মেয়র মনোনয়নপ্রত্যাশী সাতজনকে নিয়ে জরুরি সভা করেন। সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক প্রয়াত মেয়র মো. সাহাদৎ হোসেনের স্ত্রী সালমা আক্তার শিমুলকে দলের একক প্রার্থী মনোনীত করে কেন্দ্রে সুপারিশ পাঠায় উপজেলা আওয়ামী লীগ। পরে দলটির সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদনে সালমা আক্তার আওয়ামী লীগের প্রার্থী মনোনীত হন। গত ১৩ সেপ্টেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে সালমা আক্তার ছাড়া অন্য কেউ উপনির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেননি। তবে নির্বাচনে অংশ নিতে তিনজন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর সালমা আক্তারের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণার পর তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হচ্ছেন, এমন সম্ভাবনা দেখা দেয়। ২২ সেপ্টেম্বর নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা টাঙ্গাইল জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এ এইচ এম কামরুল হাসান তাঁকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

গত ১১ ফেব্রুয়ারি মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র মো. সাহাদৎ হোসেন ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তাঁর মৃত্যুতে ১ মার্চ মেয়র পদটি শূন্য ঘোষণা করে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন