default-image

শরীয়তপুরের ডামুড্যা পৌরসভার একটি খাল থেকে লাশ উদ্ধার হওয়া সেই কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুই তরুণকে আটক করা হয়েছে। রোববার র‌্যাব-৮–এর কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

র‌্যাব-৮–এর মাদারীপুর ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার ও জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার মো. ইফতেখারুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, ওই কিশোরীকে হত্যার রহস্য উদ্‌ঘাটন করতে গিয়ে জুয়েল নামের এক তরুণকে আটক করা হয়। ওই তরুণ স্বীকার করেছেন তিনিসহ আরও দুজন কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা করেছেন। অভিযুক্ত অন্য দুজনকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বিজ্ঞাপন

গত বৃহস্পতিবার সকালে ডামুড্যা পৌরসভার খালে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় ওই কিশোরীর (১৬) লাশ ভাসছিল। খবর পেয়ে লাশটি উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে ডামুড্যা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলায় অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করা হয়।

ডামুড্যা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসান বলেন, ওই কিশোরীর সঙ্গে পাশের গ্রামের এক তরুণের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ওই তরুণ এই হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনাকারী। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, ওই কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। ওই ঘটনায় র‌্যাব এক তরুণকে এবং পুলিশ অপর এক তরুণকে আটক করেছে। দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ঘটনায় আর কারা জড়িত, তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য পড়ুন 0