default-image

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের করোনার রোগীদের জন্য নির্ধারিত আইসোলেশন ওয়ার্ডে আজ মঙ্গলবার এক যুবককে ভর্তি করা হয়েছে। ওই যুবক শ্বাসকষ্টে ভুগছেন।
তাঁর শরীরে করোনাভাইরাস রয়েছে কি না, তা জানতে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আগামীকাল বুধবার তা আইইডিসিআরে পাঠানো হবে।
শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল সূত্র জানায়, ওই যুবক এক সপ্তাহ ধরে শ্বাসকষ্টে ভুগছেন। আজ তাঁর স্বজনেরা তাঁকে নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে দুপুরে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে আনা হয়। করোনা সন্দেহে তাঁকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক চিকিৎসক বলেন, ওই যুবকের বাড়ি যেখানে, এর পাশের গ্রামের এক ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত শনিবার মারা গেছেন। মৃত ব্যক্তির ছেলে ও এই যুবক একই বাজারে কাজ করেন। তাই প্রশাসন ওই বাজার ও গ্রামটি লকডাউন করেছে। এসব কারণে তাঁকে আইসোলেশনে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মুনির আহমেদ খান বলেন, ওই যুবক অনেক অসুস্থ। তাঁর শারীরিক কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা প্রয়োজন। সেটাও করা যাচ্ছে না। আইসোলেশন ওয়ার্ডে একজন চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা চলছে। করোনা সন্দেহে তাঁর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। বুধবার আইইডিসিআরে পাঠানো হবে।
এ পর্যন্ত শরীয়তপুরের ২৩ ব্যক্তির নমুনা আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। ১৩ জনের ফল নেগেটিভ এসেছে। আর ১০ জনের ফল এখনো আসেনি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0