বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে আবুল হাসেম তপাদার বলেন, ‘ডোমসার ইউপি নির্বাচনে যিনি মনোনয়ন পেয়েছেন, তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। আর বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি মজিবুর রহমান। তাঁকে আমরা অনেক অনুরোধ করেছিলাম নির্বাচন থেকে দরে দাঁড়াতে। কিন্তু তিনি শোনেননি। তাঁর পক্ষে যুবলীগ, ছাত্রলীগের অনেকে কাজ করছেন। দলীয় শৃঙ্খলা ভাঙার অভিযোগে তাঁদের বহিষ্কার করা হয়েছে। এসব বিষয় নিয়ে নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য দিয়েছিলাম। বলেছিলাম, দলের যাঁরা নৌকার বিপক্ষে, বিদ্রোহীর পক্ষে কাজ করছেন, তাঁদের তালিকা করতে। যাতে তাঁদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া যায়। কিন্তু একটি চক্র ওই বক্তব্য এডিট করে এবং আরও মিথ্যা কথা জুড়ে দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিও ছড়িয়েছে। আমি এর বিচার চাই। একটি স্বার্থান্বেষী মহল আমার সুনাম ক্ষুণ্ন করার জন্য এ কাজ করেছে।’

বক্তব্য এডিট করে এবং আরও মিথ্যা কথা জুড়ে দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিও ছড়িয়েছে। আমি এর বিচার চাই। একটি স্বার্থান্বেষী মহল আমার সুনাম ক্ষুণ্ন করার জন্য এ কাজ করেছে।
আবুল হাসেম তপাদার, শরীয়তপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান

আবুল হাসেম তপাদারের নির্বাচনী জনসভায় হুমকি ও উসকানিমূলক বক্তব্যের একটি ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। এ নিয়ে ‘নৌকার বিপক্ষে ভোট চাওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে না’ শিরোনামে গতকাল মঙ্গলবার প্রথম আলোতে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলা চেয়ারম্যান আজ সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এম জাহাঙ্গীর, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ তালুকদার, সামিনা ইয়াসমিন প্রমুখ।

জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, দ্বিতীয় ধাপে ১১ নভেম্বর শরীয়তপুর সদর উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সদরের ডোমসার ইউপিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন মিজান মোহাম্মদ খান। ওই ইউপিতে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি মজিবুর রহমান।

সোমবার রাতে ডোমসারের ভর্তাইসার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে নৌকার প্রার্থী মিজান মোহাম্মদ খানের একটি নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য দেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল হাসেম তপাদার। এ সময় বক্তব্যে তিনি বিভিন্ন হুমকি ও উসকানিমূলক বক্তব্য দেন। ওই বক্তব্যের ৬ মিনিট ২৫ সেকেন্ডের একটি ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন