বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ সময় সাহেব আলী শর্ষে ভাঙানোর প্রক্রিয়া দেখতে গেলে মেশিনের ফিতার সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। এতে তাঁর শরীর ক্ষতবিক্ষত হয়ে যায়। মেশিন অপারেটর এ দৃশ্য দেখতে পেয়ে মেশিন বন্ধ করে দেন। ততক্ষণে সাহেব আলীর মৃত্যু হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাঁর লাশ উদ্ধার করে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদুর রহমান বলেন, ঘটনাটি মর্মান্তিক। মেশিন দেখতে এসে একজন মারা গেলেন।

বাড়াবাড়ি গ্রামের জেহের আলী ১০ বছর আগে ওই কারখানা স্থাপন করেন। তিনি জানান, কিছুদিন আগে তিনি কারখানায় অটোমেশিন স্থাপন করেন। আজ সকালে এক বৃদ্ধ এখানে এসে দুর্ঘটনায় মারা যান।

বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাক আহম্মেদ প্রথম আলোকে বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গেছে। এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মেশিনটির অনুমোদন ছিল কি না, সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন