শাজাহান খান হেফাজতে ইসলামের আদর্শে চলেন

মাদারীপুরের বাজিতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আলোচনা সভার প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ মোল্লা।
ছবি: সংগৃহীত

মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ মোল্লা অভিযোগ করেছেন, সভাপতিমণ্ডলীর সভাপতি ও সাংসদ শাজাহান খান অসাম্প্রদায়িক আদর্শের আওয়ামী লীগ করেন না। তিনি হেফাজতে ইসলামের আদর্শে চলেন। গতকাল শুক্রবার রাতে রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

শাহাবুদ্দিন আহমেদ মোল্লা বলেন, ‘শাজাহান খান মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়–সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি। কমিটির সভাপতি হিসেবে মারা যাওয়া বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গার্ড অব অনার অনুষ্ঠানে নারী ইউএনওদের উপস্থিতি নিয়ে আপত্তি করে তিনি নারীদের অবজ্ঞা করেছেন। যেখানে আমাদের দলের সভাপতি নারী, সংসদের স্পিকার নারী, বিরোধী দলের প্রধান নারী, বিভিন্ন জেলার ডিসি, এসপি নারী, সেখানে তিনি এমন সুপারিশ করেছেন। এটা আওয়ামী লীগের আদর্শ না, এটা হেফাজতের আদর্শ। শাজাহান খান এখন হেফাজতের সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন।’

মাদারীপুর-২ আসনের সাংসদ শাজাহান খানের অবসরে যাওয়ার সময় হয়েছে উল্লেখ করে জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ এই নেতা বলেন, ‘বয়স এখন আপনার ৭৩ হয়ে গেছে। এখন অবসর নেওয়ার সময় হয়েছে। আপনি এখন আবোল-তাবোল না বলে অবসর নেন।’

আলোচনা সভায় রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নিত্যানন্দ বিশ্বাস সভাপতিত্ব করেন। আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে, রাজৈর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জমির খান, রাজৈর উপজেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সেকান্দার শেখ, বাজিতপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম হাওলাদার প্রমুখ।

শাহাবুদ্দিন আহমেদ মোল্লা গত ২০ মে রাজৈর উপজেলার শান্তিনিকেতন কেন্দ্রে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে সাংসদ শাজাহান খানের বাবা মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক আচমত আলী খানের ভূমিকা নিয়ে একটি বক্তব্য দেন। এ বক্তব্যকে কেন্দ্র করে পক্ষে-বিপক্ষে প্রতিবাদ হচ্ছে।