default-image

কবুতরকে বলা হয় শান্তির প্রতীক। তবে বাগেরহাটে এক বাড়ির কবুতর আরেক বাড়িতে যাওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘাতে ১ জন নিহত ও অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

সময় অন্তত ১৫–২০টি ঘরবাড়ি ভাঙচুর করা হয়। গত বৃহস্পতিবার রাতে বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলার চুনখোলা ইউনিয়নের শাসন গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষে আসাদ শেখ (৬০) নামের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। নিহত বৃদ্ধ চুনখোলা ইউনিয়নের শাসন গ্রামের বাসিন্দা। ঘটনার পর থেকে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে মোল্লাহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পাশের গোপালগঞ্জের ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তবে পুলিশ হামলার ঘটনায় জড়িত কাউকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এ ঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় লোকজনের বরাত দিয়ে বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) মীর মো. সাফিন মাহমুদ বলেন, চুনখোলা ইউনিয়নের শাসন গ্রামের মামুন শেখ এবং কিবরিয়া শরীফের মধ্যে আগের বিরোধ ছিল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাদের একপক্ষের কবুতর উড়ে অন্যপক্ষের বাড়িতে যাওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে আসাদ শেখসহ অন্তত ৮-১০ জন রক্তাক্ত জখম হন। এ সময় অন্তত ১৫–২০টি ঘরবাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

তাদের উদ্ধার করে মোল্লাহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পাশের গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গোপালগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আসাদ শেখ মারা যান। পরে পুলিশ গিয়ে সেখানকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রেণে আনে। সংঘাত এড়াতে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ ঘটনায় এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন