বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাগআঁচড়া ইউপির ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২৮ নভেম্বর। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১৬ নভেম্বর আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আবদুল খালেকের আবআঁচড়া নির্বাচনী কার্যালয়ের পাশ দিয়ে তাঁর কর্মী-সমর্থকেরা মহড়া দিচ্ছিলেন। এ সময় তাঁদের ওপর হামলা করেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইলিয়াস কবির বকুলের কর্মী-সমর্থকেরা। এতে খালেকের সমর্থক আবু সাঈদ গুরুতর আহত হন। খবর পেয়ে আবু সাঈদের বাবা আবদুল খালেক ধাবক ও ভাই মোস্তাফিজুর রহমান এগিয়ে যান। পরে তাঁদেরও লাঠিসোঁটা দিয়ে পেটানো হয় এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়। আহত অবস্থায় তিনজনকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে আবদুল খালেক ধাবক ও মোস্তাফিজুর রহমানকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। আজ চিকিৎসাধীন অবস্থায় মোস্তাফিজুর রহমান মারা যান। আবদুল খালেকের ধাবকের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

ওই সহিংসতার ঘটনায় ১২ জনকে আসামি করে শার্শা থানায় একটি মামলা হয়েছে। মামলায় ১০ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাঁদের মধ্যে তিনজন কারাগারে। সাতজন জামিনে ও দুজন পলাতক আছেন।

আবদুল খালেকের ছেলে আবু সাঈদ বলেন, ‘১৬ নভেম্বর রাত ১০টার দিকে সাতমাইল পশুহাট থেকে বাড়িতে ফেরার সময়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ইলিয়াস কবিরের নেতৃত্বে আমাদের ওপরে হামলা করা হয়। পরে আমার বাবা ও ভাই ঘটনাস্থলে পৌঁছালে তাঁদের ওপরও হামলা করে গুরুতর জখম করা হয়। এতে আমার বড় ভাই মোস্তাফিজুর আজ মারা গেছেন। আমরা বিদ্রোহী প্রার্থী খালেকের পক্ষে নির্বাচনী কাজ করছি বলে ইলিয়াস কবিরের ক্ষোভ আছে।’

তবে ওই হামলা চালানোর অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইলিয়াস কবির বলেন, ‘আমি ঘটনাস্থলেই ছিলাম না। মূলত ধাবক পরিবারের লোকজন প্রতিপক্ষের চেয়ারম্যান প্রার্থী খালেকের পক্ষ নিয়ে আমার নির্বাচনী কার্যালয়ে গিয়ে হামলা চালায়। এ সময় আমার কর্মী সংরক্ষিত মহিলা সদস্য আরিনা বেগম আহত হন। পরে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে কয়েকজন আহত হতে পারেন।’

শার্শা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদরুল আলম খান বলেন, নির্বাচনী সহিংসতায় চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুল খালেকের সমর্থক মোস্তাফিজুর রহমান চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকায় মারা গেছেন। এই খবর এলাকায় পৌঁছালে বিক্ষুব্ধ লোকজন বাগআঁচড়া বাজারে অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করেন। পরে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন