বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন নির্যাতনের শিকার গৃহবধূর স্বামী শাহজাদপুর উপজেলার খাস সাতবাড়িয়া গ্রামের মেহেদী হাসান সুজন (৪৩), তাঁর মা ময়না বেগম (৫৫) ও তাঁর ভাই মো. সুমন (৩৫)।

র‌্যাবের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রায় ১৫ বছর আগে পোশাক কারখানার শ্রমিক মেহেদীর সঙ্গে ওই নারীর বিয়ে হয়। চাকরির সুবাদে তাঁরা সপরিবার ঢাকায় বসবাস করতেন। বিয়ের পর থেকেই স্বামীর সংসারে বিভিন্নভাবে নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছিলেন ওই গৃহবধূ। তাঁদের সংসারে দুই কন্যাসন্তান রয়েছে।

১৫ ডিসেম্বর পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করার একপর্যায়ে মাথার চুল ও চোখের ভ্রু কেটে দেন স্বামী মেহেদী।

৩ ডিসেম্বর পরিবারসহ শাহজাদপুরে বেড়াতে আসেন মেহেদী। ১৫ ডিসেম্বর পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করার একপর্যায়ে মাথার চুল ও চোখের ভ্রু কেটে দেন স্বামী মেহেদী। পরে ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় ২০ ডিসেম্বর ওই গৃহবধূর বাবার পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা করা হয়।

বিষয়টি র‍্যাবের নজরে এলে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে ও গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে ঢাকার সাভার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন