শাহবাজপুর সেতু দিয়ে আজ হালকা যান চলাচল করবে

বিজ্ঞাপন
default-image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর সেতুর প্রবেশমুখে শিপমেন্টের মালামাল নিয়ে একই জায়গায় চার দিন ধরে আটকে আছেন কাভার্ড ভ্যানের চালক রিপন মিয়া। ১৮ জুন সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম থেকে সিলেটের উদ্দেশে রওনা দিয়ে মধ্যরাতে সরাইল বিশ্বরোড মোড়ে পৌঁছান তিনি। বিশ্বরোড থেকে শাহবাজপুর সেতু পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার যেতে তাঁর দুই দিন লেগেছে।

ঢাকার আরিচা থেকে কাঁঠাল নিয়ে এসে ছয় দিন ধরে আটকা পড়েছেন সিলেটগামী ট্রাকের চালক মো. মানিক, ঝিনাইদহ থেকে সিলেটগামী ট্রাকচালক ইমতিয়াজ আলী, রাজশাহী থেকে রসুন নিয়ে এসেও ছয় দিন ধরে আটকা পড়েছেন ট্রাকচালক দুলাল মিয়া।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সরাইলের তিতাস নদের ওপর নির্মিত শাহবাজপুর সেতু দিয়ে ছয় দিন ধরে সিলেটের সঙ্গে সারা দেশের সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। এদিকে গতকাল রোববার সরেজমিনে দেখা গেছে, সওজ কর্তৃপক্ষ সেতুর ওপর বেইলি সেতু বসানোর কাজ করছে। সেতুর দুই পাশে ৩০-৪০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে পণ্যবাহী ভারী ট্রাক ও লরি আটকা পড়ে আছে।

পরিবহনশ্রমিকদের অভিযোগ, সওজ ও হাইওয়ে পুলিশের উদাসীনতার কারণে মহাসড়কে আটকে থাকা শ্রমিকদের নানা রকম দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে। রাস্তায় পুলিশি নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন শ্রমিকেরা। তবে সওজ কর্তৃপক্ষের ভাষ্য, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের অবস্থা স্বাভাবিক করার জন্য শ্রমিকেরা দিনরাত কাজ করছেন। আজ সোমবার বিকেলে সেতু দিয়ে হালকা যান চলাচল সম্ভব হবে।

সওজ সূত্রে জানা গেছে, ঢাকার নারায়ণগঞ্জ থেকে ফেরি আনা হচ্ছে। তিন থেকে চার দিনের মধ্যে ফেরি চলে আসবে। তিতাস নদের দুই পাশে ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপারের জন্য রাস্তা ও ঘাট নির্মাণের কাজ চলছে। বেইলি সেতুর পাশাপাশি বিকল্প হিসেবে এই ফেরি ব্যবহার করা হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সওজের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী ভূঁইয়া রেদওয়ানুর রহমান বলেন, সেতুর ওপর বসানো নতুন বেইল সেতু দিয়ে চার–পাঁচ টনের হালকা যান চলাচল করতে পারবে। তবে ভারী যান চলাচল করতে দেওয়া হবে না। সেতুর দুই পাশে আটকা পড়া বিভিন্ন ভারী পণ্যবাহী যানবাহন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিষয়টি ঊর্ধ্বতন প্রকৌশলীরা আলোচনা করছেন।

চট্টগ্রাম থেকে সিলেটের হবিগঞ্জগামী চালবোঝাই ট্রাকের চালক সালাম মিয়া, দিনাজপুর থেকে চাল নিয়ে সিলেটগামী ট্রাকের চালক সাত্তার মিয়া, সিলেট থেকে খাদ্যসামগ্রীবাহী ট্রাকের চালক নাসির আহমেদ ও সিলেট থেকে কাঁচামাল নিয়ে ঢাকাগামী ট্রাকের চালক মো. রাসেল বলেন, তাঁরা পাঁচ-ছয় দিন ধরে মহাসড়কে আটকা পড়েছেন। এখানে পানি ও খাদ্যসামগ্রীর অভাব। অন্যদিকে সন্ধ্যার পর অস্ত্রধারী স্থানীয় যুবকেরা তাঁদের ট্রাক ও লরির সব লুটে নিচ্ছে। এমনকি যানবাহনের জ্বালানি তেল, ব্যাটারি, হেড লাইট ও চাকা পর্যন্ত খুলে নিয়ে যাচ্ছে। রাস্তায় পুলিশ তেমন কোনো নিরাপত্তা দিচ্ছে না।

শাহবাজপুর এলাকায় বুধবার ঢাকা থেকে সিলেটের উদ্দেশে রওনা হওয়া মাছ ব্যবসায়ী সুভাষ দাস বুধবার শাহবাজপুর এলাকায় মাছবোঝাই ট্রাক নিয়ে আটকা পড়েন। তিনি বলেন, ট্রাকে তাঁর ১১ লাখ টাকার মাছ ছিল। তিন দিন পর তিনি ওই মাছ শাহবাজুর মৎস্য আড়তে সাত লাখ টাকায় বিক্রি করেন। কিন্তু বিক্রির হওয়া মাছের টাকা না পেয়ে ঢাকায় ফেরত যেতে পারছেন না।

মহাসড়কের বিজয়নগর উপজেলায় চান্দুরা এলাকায় সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী পণ্যবাহী ট্রাকের চালক আবদুল কাদের বলেন, মহাসড়কের ওপর দুই সারিতে রাখা ট্রাক নিয়ে সামান্য এগোনোর চেষ্টা করলে পুলিশ তাঁকে মারধর করে এবং ট্রাকের হেড লাইট ভেঙে দেয়।

চট্টগ্রাম থেকে সিলেটগামী কাঁচামাল নিয়ে শাহবাজপুর সেতু এলাকায় ছয় দিন ধরে আটকা পড়ে আছেন ট্রাকচালক বাবু নিমাই। তিনি বলেন, তিন-চার দিন ধরে সন্ধ্যার পর দেড় হাজার থেকে দুই হাজার টাকার বিনিময়ে বেইলি সেতু (ঢাকা অভিমুখী অংশ) দিয়ে ট্রাক ছেড়ে দেওয়া হয়।

গতকাল দুপুরে শাহবাজপুর সেতুর ওপর ব্রাহ্মণবাড়িয়া সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী স্বামীর আল খাতুনের সঙ্গে কথা হয়। তিনি বলেন, আগামীকাল (আজ সোমবার) বিকেলের মধ্যে বেইলি সেতু দিয়ে চার থেকে পাঁচ টন ওজনের যান চলাচলের উপযোগী করা সম্ভব হবে। তবে মাঝারি ও ভারী যানবাহন এই সেতু দিয়ে চলাচল সম্ভব নয়। যাত্রী নামিয়ে বাস চলাচল করতে পারবে। তা ছাড়া আশা করা যায়, আগামী ৩ জুলাই নির্মাণাধীন সেতু দিয়ে সব ধরনের যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। তবে একাধিক নির্মাণশ্রমিক বলেন, নতুন সেতুর ৪৪ মিটার অংশের কাজ সম্পন্ন করতে আরও ৪০ দিন লাগবে।

পরিবহনশ্রমিকদের দুর্ভোগ ও চুরি-ছিনতাইয়ের অভিযোগ প্রসঙ্গে হাইওয়ে পুলিশের সিলেট অঞ্চলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামসুল আলম সরকার বলেন, ‘এমন কয়েকটি অভিযোগ পেয়েছি। চালকদের যানবাহনের আশপাশে থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছি।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন