বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত ২৫ এপ্রিল এ নিয়ে প্রথম আলোতে ‘প্রতিবেশীদের বাড়িতে গিয়ে খাবার চায় শিশু দুটি, তাই শিকলে বেঁধে রাখছেন বাবা-মা’ শিরোনামে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। শিকলমুক্ত করা হয় দুই শিশুকে।

পরিবারটির বসবাস বদরগঞ্জ পৌরসভার পকিহানা রেলবস্তির ঝুপড়ি একটি ঘরে। শিশু সুমন ও সিমনের ছোট আরও দুই ভাই ও এক বোন রয়েছে। শিশুদের বাবা আমির হোসেন স্থানীয় হাটবাজারে গরু কেনাবেচার মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করে সামান্য কিছু টাকা পান। ছোট ছোট সন্তানের কারণে মা শেফালী বেগমকে কেউ কাজে নিতেন না। এ কারণে সংসারে অভাব-অনটন লেগে ছিল।

default-image

গতকাল মঙ্গলবার ঈদের দিন বিকেলে ওই দুই শিশুর বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, মা-বাবাসহ পাঁচ শিশুর পরনে নতুন কাপড়। সবার মুখে ছিল হাসি। শিশু সুমন ও সিমন খেলছিল। কথা বলে জানা যায়, সকালে বাড়িতে রান্না হয়েছে পোলাও, গরু ও মুরগির মাংস। তারা পেটভরে খেয়েছে। এই প্রথম ঈদের দিন ভালো খাবারের জন্য কোথাও ছুটতে হয়নি তাদের। রাতেও পোলাও-মাংস রান্নার প্রস্তুতি চলছিল।

শেফালী বেগম বলেন, ‘এবার ঈদোত হামার পোলাও–মাংস আর কাপড়চোপড়ের অভাব নাই। কোনো দিন ভাবি নাই অভাব ছাড়া ঈদ জেবোনে আসপে।’ খুশিতে আটখানা শিশু সুমন বলে, ‘আইজ পোলাও–গোশত খুব খাচু। ঘরোত মোর আরও পাঁচটা নয়া শার্ট আর স্যুট আছে।’

আমির হোসেন বলেন, ‘গত কোরবানির ঈদোত মানুষ একনা গরুর গোশত দিচিল। ওই দিনের পরে গরুর গোশত আর খাবার পারি নেই। পেপারোত হামার কষ্টোর কথা পড়িয়া মানুষ বাড়িত আসিয়া এবার অনেক খাবার দিয়া গেইচে। সবায় মিলি ঈদের দিন প্যাট ভরি গোশত–পোলাও খাচি। হামাক সাহায্য দেওয়া মানুষগুলোর জন্যে ঈদের নামাজ পড়িয়া দুই হাত তুলি দোয়া করচু।’

পাশে দাঁড়িয়েছেন অনেকে

অনেকেই পরিবারটির পাশে দাঁড়িয়েছেন। গত রোববার রাতে সস্ত্রীক পরিবারটির কাছে যান দিনাজপুরের যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ (বিদ্যুৎ কোর্ট) মো. কামরুজ্জামান। তিনি বলেন, ‘শিশুদের বেঁধে রাখার সংবাদটি প্রথম আলোতে পড়ে মনে খুব কষ্ট পেয়েছি। ব্যক্তিগতভাবে সামান্য কিছু খাবার ও নতুন কাপড় হতদরিদ্র পরিবারটিকে দিতে পেরে কিছুটা ভালো লাগছে।’

রংপুর-২ আসনের সাবেক সাংসদ আনিসুল ইসলাম মণ্ডল হতদরিদ্র পরিবারটিকে ছয় মাসের খাবার সরবরাহ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। ঢাকার মেট্রোপলিটন পুলিশের তেজগাঁওয়ের উপকমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার পরিবারটির জন্য ঈদে উপহারসামগ্রী পাঠিয়েছেন।

দলের পক্ষে ঈদ উপহার তুলে দিয়েছেন উপজেলা বিএনপির নেতা সাইদুল হকসহ দলটির অন্য নেতারা। বদরগঞ্জের ইউএনও আবু সাঈদ, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলে রাব্বি ও পৌরসভার মেয়র আহসানুল হক চৌধুরী চাল, ডাল, তেলসহ শুকনা খাবার দিয়েছেন। আরও অনেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন