default-image

গ্রামবাসীর সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় শিক্ষার্থীদের ওপর হামলাকারী অজ্ঞাত ২৫০ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আজ রোববার সন্ধ্যায় প্রশাসনের পক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তা জেফরুল হাসান চৌধুরী এ অভিযোগ করেন।

আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আবদুর রশিদ বলেন, বিশ্ববদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযোগ দিয়ে গেছে। মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

এর আগে আজ রোববার বেলা একটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চত্বরে সংবাদ সম্মেলন করে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করতে ২৪ ঘণ্টার সময় বেঁধে দেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এ ছাড়া হলের তালা ভেঙে ভেতরে অবস্থানরত ছাত্রদের বিদ্যুৎ, গ্যাসসহ অন্যান্য মৌলিক সুযোগ–সুবিধা প্রদান করাসহ ছয় দফা দাবি জানান তাঁরা।

শুক্রবারের সংঘর্ষের পর থেকে গেরুয়া বাজারের খাবার হোটেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সব দোকানপাট বন্ধ আছে। ফলে সংকটে পড়েছেন সেখানে অবস্থান করা শিক্ষার্থীরা। খাবারের সংকট নিরসনে দ্রুত ক্যাম্পাসের ভেতর খাবারের দোকানগুলো খুলে দেওয়ার দাবি তাঁদের।

বিজ্ঞাপন

বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৬ ব্যাচের শহীদ রফিক-জব্বর হলের আবাসিক শিক্ষার্থী এনামুল হক বলেন, ‘শনিবার কোনোরকমে সাভারে গিয়ে খেয়েছি। হলের ডাইনিং-ক্যানটিন এবং বটতলার দোকানগুলো বন্ধ রয়েছে। এ রকম বন্ধ থাকলে খাবার সংকটে আমরা অসুস্থ হয়ে পড়ব।’

দোকান খোলার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা দোকান মালিক সমিতির সেক্রেটারি রাফি হোটেলের মালিক হযরত আলী বলেন, ‘মঙ্গলবার অফিস খোলার দিনে আমরা হোটেল খোলার ব্যাপারে আবেদন করব। আমরা প্রশাসনের কাছে সীমিতভাবে হলেও দোকান খোলার বিষয়ে প্রস্তাব জানাব।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান বলেন, শিক্ষার্থীরা নিজ দায়িত্বে হলে উঠেছেন। তাঁরা পরিবেশ–পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন। শনিবার উপাচার্যদের সঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশনের যে সভা হয়েছে, সেখান থেকে কোনো নির্দেশনা আসেনি। সরকারি নির্দেশনা পেলে সে অনুযায়ী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন