বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দীর্ঘ বিরতির পর সহপাঠীদের দেখা পেয়ে অনেকে আলিঙ্গনের পাশাপাশি খোশগল্পে মেতেছেন। পলিটিক্যাল স্টাডিজ বিভাগের স্নাতক চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ফারহানা রশিদ ইরিন বলেন, ‘আজকের এই দিনটি আমার শিক্ষাজীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিন। করোনায় যখন বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়েছিল, তখন এই দিনটি আবার ফিরে আসবে এমনটা ভাবতেও পারিনি।’

একই বিভাগের শিক্ষার্থী বুরহান উদ্দিন বলেন, ‘দীর্ঘদিন পর পরিচিত মুখ ও ক্যাম্পাস দেখলাম, এ যেন এক নতুন অনুভূতি!’

তবে ক্লাসে ফিরে স্বাস্থ্য সচেতনতার বিষয়ে দিকনির্দেশনা দেন শিক্ষকেরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ধরনের আইনশৃঙ্খলা মেনে চলার নির্দেশও শিক্ষার্থীদের দেন তাঁরা। সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক দিলারা বেগম জানান, রুটিন অনুযায়ী সশরীর ক্লাস এবং পরীক্ষা সকাল আটটায় শুরু হয়েছে। শিক্ষার্থীদের সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, গত ২৫ অক্টোবর থেকে আবাসিক হল খুলে দেওয়া হয়েছে। এতে টিকার কমপক্ষে একটি ডোজ গ্রহণের প্রমাণ এবং স্বাস্থ্যবিধি সঠিকভাবে মানার শর্তে শিক্ষার্থীদের আবাসিক হলে ফেরার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। অন্তত এক ডোজ টিকা গ্রহণ করে সশরীর ক্লাসে ফিরতে হবে। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থানরত সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন