default-image

মাদারীপুরের শিবচর উপজেলায় এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে উপজেলার বাঁশকান্দি ইউনিয়নের শেখপুর এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। ওই গৃহবধূর বাবার বাড়ির লোকজনের অভিযোগ, সাথী বেগমকে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রেখেছেন তাঁর স্বামী।

ওই গৃহবধূর নাম সাথী বেগম (২৮)। তিনি একই এলাকার মামুন চৌকিদারের স্ত্রী। তিনি দুই ছেলে ও এক মেয়ের মা ছিলেন। বাঁশকান্দি ইউনিয়নের শেখপুর দক্ষিণ বাঁশকান্দি গ্রামের আছুমদ্দিন কবিরাজের মেয়ে সাথী। এ ঘটনার পর থেকেই সাথীর স্বামী মামুন পলাতক আছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আজ ভোরে সাথীর স্বামী মামুন তাঁর শ্বশুরবাড়িতে ফোন করে বলেন, তাঁর স্ত্রী ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। এমন খবর পেয়ে সাথীর ভাই আনোয়ার হোসেন ও পরিবারের লোকজন এসে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ দেখতে পান। পরে পুলিশ এসে লাশটি উদ্ধার করে।

বিজ্ঞাপন

সাথীর ভাই আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘যৌতুকের টাকার জন্য প্রায়ই আমার বোনকে চাপ দিতেন মামুন। এ নিয়ে কয়েক বার সালিসও হয়েছে। কয়েক দিন আগে ওকে মারধর করলে আমরা ফরিদপুর মেডিকেলে নিয়ে ওকে চিকিৎসা করাই। আজ আমার বোনকে মেরে ঘরে ঝুলিয়ে রেখেছে। আমার বোন আত্মহত্যা করেনি। ওকে হত্যা করা হয়েছে।’

সকাল থেকে অভিযুক্ত মামুনের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তাঁর সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

শিবচর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমির হোসেন সেরনিয়াবাত বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, সাথী বেগমকে হত্যা করে আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন