default-image

মাদারীপুরের শিবচরে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হন ৫ জন। আজ বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে মারা যান ইলিয়াস ঢালী (৪৫) নামের ওই ব্যক্তি। তিনি শিবচর উপজেলার ডিক্রিরচর গ্রামের ইউনুস ঢালীর ছেলে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গতকাল বুধবার রাত ৯টার দিকে শিবচরের ডিক্রিরচর এলাকায় কাদিরপুর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী জাহাঙ্গীর ব্যাপারীর সমর্থক আব্বাস মুনশির সঙ্গে অপর চেয়ারম্যান প্রার্থী চান মিয়া তালুকদারের সমর্থক মজিবুর রহমানের কথা–কাটাকাটি হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে উভয় পক্ষের সমর্থকেরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে নারীসহ আহত হন অন্তত ৬ জন। তাঁদের উদ্ধার করে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তাঁদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আহত রুবেলকে ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। বাকি আহত ব্যক্তিদের দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী হাসপাতালে দেখতে গেলে উভয় পক্ষের মধ্যে আবার সংঘর্ষ হয়। ভয়ে হাসপাতাল থেকে আহত ব্যক্তিদের কয়েকজন পালিয়ে যান। আহত ইলিয়াস ঢালী উপজেলার শেখপুরের শম্বুক এলাকায় শ্বশুরবাড়ি চলে যান। আজ ভোর ৫টার দিকে সেখানেই মারা যান ইলিয়াস।

বিজ্ঞাপন

শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিরাজ হোসেন বলেন, ইলিয়াসের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে। নির্বাচনী এলাকায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

১১ এপ্রিল মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার সব কটি ইউনিয়নসহ প্রথম ধাপে দেশের ৩৭১টি ইউপি নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাবের কারণে ১ এপ্রিল নির্বাচন কমিশনের (ইসি) উপসচিব মো. আতিয়ার রহমানের সই করা এক প্রজ্ঞাপনে নির্বাচন স্থগিতের কথা বলা হয়। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে স্থানীয় সরকার বিভাগকে চিঠি দেয় ইসি। করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত সব নির্বাচন বন্ধ থাকবে বলেও জানানো হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন