default-image

১৬ মাসের কন্যাশিশু কান্না করলে দুধ খাইয়ে কান্না থামান মা। তারপরে দা দিয়ে শিশুর গলা কেটে হত্যা করেন। ঘরে তখন কেউ ছিল না। এক প্রতিবেশী হুট করে সে ঘরে গিয়ে মায়ের সামনে কন্যাশিশুর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার করে জানান আশপাশের মানুষের।

আজ রোববার সকালে এমন ঘটনা ঘটেছে ভোলা সদর উপজেলার ধনিয়া ইউনিয়নের চেউয়াখালী গ্রামে। নিহত শিশুর নাম তাইয়েবা ইসলাম। পুলিশ খবর পেয়ে দুপুর ১২টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুর মা মোসাম্মৎ তানিয়াকে (২৮) আটক করে। তানিয়াকে আসামি করে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন শিশুটির বাবা মো. সেলিম।

প্রতিবেশী ও স্বজনদের বরাত দিয়ে ধনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান এমদাদ হোসেন বলেন, সেলিম ও তানিয়ার পরিবারে দুই সন্তান। বড় ছেলে একটি মাদ্রাসায় পড়ে। সকাল সাড়ে আটটার দিকে সেলিম কাজে বাড়ির বাইরে যান। নয়টার দিকে হত্যার ঘটনা ঘটে। তানিয়া কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন। শারীরিকভাবে দুর্বল ও পুষ্টিহীনতায় ভুগছিলেন।

লাশ উদ্ধারের পর ভোলা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এনায়েত হোসেন বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তানিয়া হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। কিন্তু কেন হত্যা করেছেন, তা বলতে পারেননি। হত্যার কাজে ব্যবহৃত দা উদ্ধার করা হয়েছে। দায়ে রক্তের দাগ আছে। শিশুটির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা মো. সেলিম হত্যা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন