বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রথমে শাহাব উদ্দিনকে নিয়ে যাওয়া হয় বানিয়াচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। সেখানে তাঁর অবস্থার অবনতি ঘটলে চিকিৎসকেরা তাঁকে হবিগঞ্জের ২৫০ শয্যার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠান। সেখানে নিয়ে যাওয়ার পর দায়িত্বরত চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। এ হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তা মিঠুন রায় মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

খবর পেয়ে হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার এস এম মুরাদ আলীসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। নিহত শাহাব উদ্দিন ওই গ্রামের ইরফান উল্লাহর ছেলে।

বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ এমরান হোসেন বলেন, শিশুদের ঝগড়া নিয়ে প্রথমে দুই ভাইয়ের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে ওই কিশোর (১৭) শাহাব উদ্দিনকে একটি বল্লম দিয়ে পেটে আঘাত করেন। এতেই তিনি প্রাণ হারান। নিহত ব্যক্তির লাশের সুরতহাল সম্পন্ন হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জের ২৫০ শয্যার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন