বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণী সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২৫ আগস্ট রাত আটটার দিকে নালিতাবাড়ী উপজেলার একটি বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিল মেয়েটি। মেয়েটির পিছু নেন আহাম্মদ আলী। মেয়েটি তার বাড়িতে চলে যায়। এ সময় মেয়েটির মা–বাবা ও স্বজনেরা বাড়িতে ছিলেন না। এই ফাঁকে আহাম্মদ আলী মেয়েটিকে একটি ছাপরায় নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে বিষয়টি জানাজানি হয়।

এ ঘটনায় মেয়েটির বড় ভাই বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে আহাম্মদ আলীর নামে নালিতাবাড়ী থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। মামলার তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ১২ ডিসেম্বর নালিতাবাড়ী থানার তৎকালীন উপপরিদর্শক (এসআই) মো. রুহুল আমীন তালুকদার আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে আদালত এ রায় দেন।

রায়ে রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি গোলাম কিবরিয়া সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, আসামি গ্রেপ্তারের দিন থেকে এ রায় কার্যকর হবে। তবে ঘটনার পর থেকেই আহাম্মদ আলী পলাতক থাকায় তাঁর পক্ষের কোনো আইনজীবী আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন