default-image

দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতির মূল শক্তি স্বাধীনতা বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি বলেছেন, ‘উন্নয়নের জন্য ভালো নেতার দরকার। আমাদের নেতা হলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনার ম্যাজিকে আজ দেশের ১৬ কোটি মানুষের ঘরে ঘরে বিদ্যুতের বাতি জ্বলছে।’

সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় একটি শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, ‘এমন কোনো গ্রাম নেই, ঘর নেই; যেখানে বিদ্যুৎ যায়নি। অথচ ১৫ বছর আগে এটি চিন্তাও করা যায়নি। আমরা স্বাধীন না হলে এটি সম্ভব হতো না। স্বাধীনতাই আমাদের মূল শক্তি। তাই স্বাধীনতাকে সুরক্ষা করতে হবে।’

আজ রোববার দুপুরে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার মেজর মাহফুজুর রহমান সবুজ উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এ অনুষ্ঠান হয়। অনুষ্ঠানে আবদুস ছত্তার মাস্টার স্মৃতি বৃত্তি এবং অনলাইন বেস্ট পারফর্মার শিক্ষকদের বৃত্তি ও সনদ প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান আরও বলেন, দেশ কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগসহ সব ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। একটি দল থেকে সতর্ক থাকতে হবে, তারা উন্নয়নের বিরোধী। রাজাকারদের সঙ্গে কোনো আপস নয়, এরা ঘরের শত্রু। এই শত্রুদের থেকেও সাবধান থাকতে হবে।

বিজ্ঞাপন

হাওরের মানুষদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত দরদি জানিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, হাওর এলাকার জন্য কোনো প্রকল্প নিয়ে গেলে তিনি খুশি হন। তাই সুনামগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট হচ্ছে। সুনামগঞ্জে রেললাইন আসবে, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হবে, হাওর এলাকায় উড়ালসড়ক হবে। এগুলোর কাজ অনেক এগিয়ে গেছে। এ জন্য শেখ হাসিনার সব কাজে সহযোগিতা ও সমর্থন দিতে হবে। তিনিই দেশের উন্নয়ন-অগ্রযাত্রায় কান্ডারি।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মোখলেছুর রহমানে সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আশরাফুল করিম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি নূরুল হুদা মুকুট, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত। এ ছাড়াও বক্তব্য দেন বিশ্বম্ভরপুর দীগেন্দ্র বর্মণ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ বিমলাংশু রায়, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ছানোয়ার হোসেন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সেলিম খান, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান রণজিৎ চৌধুরী, শিক্ষক অঞ্জন কুমার দে প্রমুখ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন