গ্রেপ্তার
প্রতীকী ছবি

শেরপুরের সদর উপজেলা থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার এক ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্যসহ দুজনকে ইয়াবা বড়িসহ গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। আজ শুক্রবার বিকেলে আদালতের নির্দেশে তাঁদের কারাগারে পাঠানো হয়।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন ভাতশালা ইউপির ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. খোকন মিয়া (৪৬) ও উপজেলার ছনকান্দা মিয়াবাড়ি গ্রামের মো. নুরান মিয়া (২৪)। ইউপি সদস্য খোকনও মিয়াবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা। বৃহস্পতিবার রাতে র‌্যাব-১৪ সদস্যরা অভিযান চালিয়ে সদর উপজেলার বলাইয়েরচর ইউনিয়নের জঙ্গলদী গ্রাম থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করেন।

র‌্যাব ও থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, একটি চক্র মাদক বেচাকেনা করছে, এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৪ এর সদস্যরা বৃহস্পতিবার রাতে জঙ্গলদী গ্রামে অভিযান চালান। এ সময় র‌্যাব হাতেনাতে খোকন ও নুরানকে আটক করেন। পরে তল্লাশি চালিয়ে খোকনের কাছ থেকে ১৫টি ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার করা ইয়াবা বড়ির আনুমানিক মূল্য ৪ হাজার ৫০০ টাকা। এ ঘটনায় র‌্যাব-১৪, জামালপুরের নায়েব সুবেদার মির্জা রাশেদুল আলম বাদী হয়ে শুক্রবার দুপুরে দুজনের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে সদর থানায় মামলা করেন।

র‌্যাব-১৪ জামালপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মৃণাল কান্তি সাহা বলেন, ইউপি সদস্য দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তাঁদের দুজনকে শেরপুর সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মুনসুর আহাম্মদ বলেন, বিকেলে শেরপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারিন ফারজানার আদালতে তাঁদের হাজির করা হয়। পরে বিচারকের নির্দেশে তাঁদের কারাগারে পাঠানো হয়।