রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) চন্দন কুমার পাল রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তবে আসামিপক্ষে রাষ্ট্রনিযুক্ত কৌঁসুলি জাহিদুল হক প্রথম আলোকে বলেন, আদালতের রায়ে অসংগতি রয়েছে। তাই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে।

থানা-পুলিশ অভিযান চালিয়ে মিল্টনের বাড়ি থেকে আবদুর রাজ্জাকের রক্তাক্ত জামাকাপড় ও মিল্টন বাড়ির পাশের এক কবরস্থান থেকে ছিনতাই হওয়া অটোরিকশা উদ্ধার করে।

আইনজীবী চন্দন কুমার পাল প্রথম আলোকে বলেন, ইজিবাইকচালক আবদুর রাজ্জাককে হত্যার অভিযোগে আদালত আসামি সাগরকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড (৩০ বছর) এবং ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড, অটোরিকশা ছিনতাইয়ের অভিযোগে ৭ বছরের কারাদণ্ড এবং ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড এবং আলামত গোপন করার অভিযোগে ৫ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেন। ঘটনার পর থেকে আসামি সাগর পলাতক। তাই তাঁকে গ্রেপ্তারের দিন থেকে সাজা কার্যকর হবে বলে আদালত নির্দেশ দেন।

অপর দিকে হত্যার দায় থেকে আসামি মিল্টনকে অব্যাহতি দিয়ে ইজিবাইক ছিনতাইয়ের অভিযোগে আদালত তাঁকে ৬ বছর ৩ মাস এবং আলামত গোপন করার দায়ে ৩ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

আদালত ও মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ৭ মার্চ সন্ধ্যায় শেরপুর শহরের দমদমা কালীগঞ্জ এলাকার বাসা থেকে একটি নতুন ইজিবাইক নিয়ে বের হন চালক আবদুর রাজ্জাক। ওই দিন গভীর রাতেও তিনি বাড়িতে না ফেরায় পরিবারের লোকজন খোঁজখবর শুরু করেন। তাঁর ব্যবহৃত মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। পরে প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানতে পারেন, শেরপুর জেলা কারাগার মোড় থেকে আসামি সাগর ও মিল্টন তাঁকে ভাড়ায় পার্শ্ববর্তী আখের মামুদের বাজার এলাকায় নিয়ে গেছেন। ওই তথ্য থানায় জানানো হয়। পরে ওই দিন রাতেই সদর থানা-পুলিশ অভিযান চালিয়ে মিল্টনের বাড়ি থেকে আবদুর রাজ্জাকের রক্তাক্ত জামাকাপড় ও মিল্টন বাড়ির পাশের এক কবরস্থান থেকে ছিনতাই হওয়া অটোরিকশা উদ্ধার করে। পরদিন ভোরে পৌরসভার মোবারকপুর এলাকার একটি ইটভাটা থেকে আবদুর রাজ্জাকের ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় নিহত রাজ্জাকের স্ত্রী সাজেদা বেগম বাদী হয়ে সাগর, মিল্টন ও রেজুয়ানকে আসামি করে সদর থানায় হত্যা মামলা করেন। ওই মামলায় ২০১৬ সালের ১৩ মার্চ মিল্টনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তিনি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

মামলার তদন্ত শেষে একই বছরের ২৮ সেপ্টেম্বর সদর থানার তৎকালীন উপপরিদর্শক মো. আনছার আলী ওই তিন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষ্য–প্রমাণ বিশ্লেষণ শেষে আদালত আজ রায় ঘোষণা করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন