বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অ্যাম্বুলেন্সটিতে লাইফ সাপোর্ট সুবিধা রয়েছে। আর লাইফ সাপোর্ট সিস্টেম পরিচালনার জন্য দক্ষ জনবল তৈরি করতে ইতিমধ্যে নার্সদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।
তবে জরুরি রোগীর কল না থাকলে সাধারণ রোগীরাও এই অ্যাম্বুলেন্স ব্যবহারের সুযোগ পাবেন। আর রোগী বহনে কিলোমিটার অনুযায়ী টাকা গুনতে হবে রোগীদের। প্রতি কিলোমিটার কত টাকা ভাড়া, তা এখনো নির্ধারণ করা হয়নি।

হাসপাতালের পরিচালক এইচ এম সাইফুল ইসলাম বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে সম্প্রতি অ্যাম্বুলেন্সটি হাসপাতালে রোগীদের বহনের জন্য পাঠানো হয়েছে। এটাই দক্ষিণাঞ্চলের একমাত্র আইসিইউ সুবিধাসংবলিত অ্যাম্বুলেন্স। একজন রোগী লাইফ সাপোর্টে থাকাকালে যা যা প্রয়োজন, তার সবকিছুই রয়েছে এই অ্যাম্বুলেন্সে। লাইফ সাপোর্ট দেওয়ার জন্য দক্ষ জনবল তৈরি করা হয়েছে।

সাইফুল ইসলাম বলেন, অ্যাম্বুলেন্সটি ব্যবহারে প্রতি কিলোমিটারে কত টাকা দিতে হবে, বিষয়টি জানার জন্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। সেখান থেকে সিদ্ধান্ত আসার পর ভাড়া জানানো হবে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি চলতি বছরের ২৬ ও ২৭ মার্চ দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে বাংলাদেশে আসেন। ওই সময় তিনি স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন ও চলমান করোনা পরিস্থিতি যৌথভাবে মোকাবিলার জন্য বাংলাদেশকে ১০৯টি আইসিইউ সুবিধাযুক্ত অ্যাম্বুলেন্স উপহার দেওয়ার ঘোষণা দেন। এরপর পাঁচ চালানে ১০৯টি অ্যাম্বুলেন্স দেশে পৌঁছায়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন